গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্যের অপব্যবহারের অভিযোগে অ্যামাজনকে ৮৮ কোটি ৬৬ লাখ ডলার জরিমানা করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। গত ১৬ জুলাই লুক্সেমবার্গ ন্যাশনাল কমিশন ফর ডাটা প্রোটেকশন (সিএনপিডি) পর্যালোচনা প্রতিবেদন প্রকাশের পর বড় অঙ্কের এ জরিমানা করলো ইইউ। এ জরিমানার মাধ্যমে ব্যক্তিগত গোপনীয়তার প্রশ্নে ইউরোপীয় ইউনিয়নের কঠোর অবস্থান স্পষ্ট হলো। ইইউর জেনারেল ডাটা প্রোটেকশন রেগুলেশন (জিডিপিআর) অনুসারে অনলাইনে ব্যক্তিগত তথ্য ব্যবহারের আগে সংশ্নিষ্ট ব্যক্তির অনুমতি নিতে হয়। আর সেই ডাটা যদি বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা হয় তবে মোটা অঙ্কের জরিমানার বিধান রেখেছে ইইউ। রয়টার্স এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে, অ্যামাজন জিডিপিআর নীতিমালা লঙ্ঘন করায় ইইউ'র জরিমানার মুখে পড়েছে। অ্যামাজনের এক মুখপাত্র বলেছেন, এটা একেবারেই অগ্রহণযোগ্য ভিত্তিহীন। তার প্রতিষ্ঠান এই জরিমানার বিরুদ্ধে আপিল করবে। মূলত ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্যের অপব্যবহার এবং গোপনীয়তা লঙ্ঘনের দায়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের চাপের মুখে রয়েছে বৈশ্বিক প্রযুক্তি জায়ান্টরা। পাশাপাশি ব্যবসায় একচ্ছত্র আধিপত্য বজায় রাখতে মনোপলিরও অভিযোগ রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে গুগল, ফেসবুক, মাইক্রোসফট, অ্যামাজন, ইউটিউব, হোয়াটসঅ্যাপের মতো প্রতিষ্ঠানগুলো।

মন্তব্য করুন