হুয়াওয়ে চীনের শেনজেনে নিজস্ব প্রদর্শনী কেন্দ্রে ভার্চুয়াল ট্যুরের মাধ্যমে নিজেদের নতুন প্রযুক্তি প্রদর্শন করেছে। বাংলাদেশের প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৫ জন অধ্যাপকের অংশগ্রহণে এই ট্যুর আয়োজন করে হুয়াওয়ে। ভার্চুয়াল এ ট্যুরে অংশ নেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সদস্য অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন, হুয়াওয়ে টেকনোলজিসের (বাংলাদেশ) জনসংযোগ ও যোগাযোগ বিভাগের পরিচালক কার্ল ইউয়িং প্রমুখ। হুয়াওয়ে জানায়, সামাজিক ও অর্থনৈতিক পরিপ্রেক্ষিতে একটি উন্নত ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যেতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সুযোগ এবং সম্ভাবনাগুলো তুলে ধরার লক্ষ্যেই এ ট্যুরের আয়োজন করা হয়। ট্যুর চলাকালে অংশগ্রহণকারীরা স্মার্ট বিশ্ব গড়ে তুলতে গ্রিন পাওয়ার, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) চালিত স্বাস্থ্যসেবা সুবিধা ও মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই করার মতো প্রযুক্তি ইত্যাদি প্রাসঙ্গিক ও ভবিষ্যৎবান্ধব প্রযুক্তি সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা লাভ করেন। অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, বিশ্বব্যাপী আইসিটি সলিউশন ও ইকুইপমেন্টের শীর্ষস্থানীয় সরবরাহকারী হিসেবে হুয়াওয়ের সুযোগ রয়েছে একটি সম্পূর্ণ কানেক্টেড, ইন্টেলিজেন্ট পৃথিবী তৈরি করার এবং এটা অনুপ্রেরণাদায়ক, যখন আমরা দেখলাম হুয়াওয়ে এই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই এগিয়ে যাচ্ছে। হুয়াওয়ে প্রতি বছর রাজস্ব আয়ের ১০ শতাংশেরও বেশি গবেষণা ও উন্নয়ন খাতে বিনিয়োগ করে। শুধু ২০২০ সালে প্রতিষ্ঠানটি এ খাতে মোট আয়ের ১৫.৯ শতাংশ বিনিয়োগ করেছে, যেখানে ১০ লাখেরও বেশি লোক কাজ করছে। 

মন্তব্য করুন