ফিশিং ই-মেইলে বিপর্যস্ত জিমেইল ব্যবহারকারীরা। ফিশিং মেইলের মাধ্যমে ফাঁদ পেতে দুর্বৃত্তরা অনেক সময় ই-মেইল ব্যবহারকারীর গুরুত্বপূর্ণ তথ্যসহ অন্যান্য ডিজিটাল সেবার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়। এতে আর্থিকসহ বিভিন্নভাবে ক্ষতির মুখে পড়েন ব্যবহারকারীরা। জিমেইল ব্যবহারকারীদের ফিশিং ই-মেইল থেকে সুরক্ষিত রাখতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে প্রযুক্তি জায়ান্ট গুগল। গুগল জানিয়েছে, ফিশিং ই-মেইল বন্ধে তারা কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছে। এ উদ্যোগের আওতায় চলতি বছরের মে থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ১৬ লাখ ফিশিং ই-মেইল বন্ধ করেছে কোম্পানিটি। ইউটিউব অ্যাকাউন্ট হাতিয়ে নেওয়ার পাশাপাশি ক্রিপ্টোকারেন্সির ব্যবহার বাড়াতে সাইবার অপরাধীরা এসব ফিশিং ই-মেইলকে ফাঁদ হিসেবে ব্যবহার করতো।

গুগলের তথ্য মতে, জিমেইল থেকে ৯৯ দশমিক ৬ শতাংশ ফিশিং ই-মেইল অপসারণ করতে সমর্থ হয়েছে গুগল। ফিশিং ই-মেইল অপসারণে ইউটিউব, জিমেইল, ট্রাস্ট অ্যান্ড সেফটি, সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন গ্রুপ এবং সেফ ব্রাউজিং টিমের সহযোগিতা নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ব্লগ পোস্টে গুগল কর্তৃপক্ষ জানায়, ইতোমধ্যে ১৬ লাখ মেসেজ বন্ধ করা হয়েছে। পাশাপাশি ফিশিং সংশ্নিষ্ট ৬২ হাজার পেজের জন্য সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে। ফিশিং ই-মেইলের ফাঁদে পড়ে বেহাত হওয়া চার হাজারের বেশি অ্যাকাউন্ট পুনরুদ্ধার করা হয়েছে। সাইবার হামলাকারীরা ফিশিং ই-মেইলের মাধ্যমে আক্রমণ চালাতে কী ধরনের কৌশল গ্রহণ করে তা জানিয়েছে গুগল। পাশাপাশি গ্রাহকরা কীভাবে সুরক্ষিত থাকবে সে-সংক্রান্ত কিছু নির্দেশনা দিয়েছে। এছাড়া ফিশিং ই-মেইলে আক্রান্ত হলে করণীয় সম্পর্কেও বাতলে দিয়েছে গুগল। গুগল জানিয়েছে, ফিশিং ই-মেইল বন্ধে গুগলের কঠোর অবস্থানের কারণে দুর্বৃত্তরা তাদের লক্ষ্য পরিবর্তন করেছে। এখন তারা বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ অন্য ই-মেইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের দিকে নজর দিচ্ছে।

মন্তব্য করুন