বাংলা একাডেমি ১৯৫৫ সালের ৩ ডিসেম্বর ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের চর্চা, গবেষণা ও প্রচারের লক্ষ্যে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে (বর্তমান বাংলাদেশে) এ একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয়। রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন-পরবর্তী প্রেক্ষাপটে বাংলা একাডেমি প্রতিষ্ঠার দাবি ওঠে। তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন বর্ধমান হাউসে এই একাডেমির সদর দপ্তর স্থাপিত হয়। একাডেমির বর্ধমান হাউসে একটি ভাষা আন্দোলন জাদুঘর আছে। প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি জুড়ে বাংলা একাডেমি একটি জাতীয় বইমেলার আয়োজন করে, যা অমর একুশে গ্রন্থমেলা নামে আখ্যায়িত। ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি বাংলা ভাষার জন্য আত্মোৎসর্গের যে করুণ ঘটনা ঘটে, সেই স্মৃতিকে অম্লান রাখতেই এই মাসে আয়োজিত এ বইমেলার নামকরণ করা হয় 'অমর একুশে গ্রন্থমেলা'। ১৯৮৪ সাল থেকে বাংলা একাডেমি আয়োজিত বইমেলাকে অমর একুশে গ্রন্থমেলা নামকরণ করা হয়।
১৯৬০ সালের ২৬ জুলাই তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর দি বেঙ্গলি একাডেমি (অ্যামেন্ডমেন্ট) অর্ডিন্যান্স জারি করেন। এর মাধ্যমে একাডেমির কার্যক্রমে কিছু পরিবর্তন আসে। তাদের কার্যাবলি সংশোধিত হয়ে সাহিত্য পুরস্কার প্রদান এবং বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতিচর্চার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন এবং ফেলো, জীবনসদস্য ও সদস্যপদ প্রদান যোগ করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় ১৯৬০ সাল থেকে বাংলা একাডেমি বাংলা সাহিত্যে অবদানের জন্য পুরস্কার প্রদান করে আসছে। বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার বাংলা ভাষার অন্যতম মর্যাদাপূর্ণ সাহিত্য পুরস্কার।
প্রতিটি বিভাগে পুরস্কারের মূল্যমান ১ লাখ টাকা। বাংলা একাডেমি পুরস্কার ১৯৬০ সালে প্রবর্তন করা হয়। বাংলা সাহিত্যের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য এ পুরস্কার প্রদান করা হয়। ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন শাখায় বছরে ৯ জনকে এ পুরস্কার প্রদান করা হয়। ১৯৮৬ সাল থেকে বছরে ২ জনকে এ পুরস্কার প্রদানের নিয়ম করা হয়। ২০০৯ সাল থেকে চারটি শাখায় পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়। ১৯৮৫, ১৯৯৭ এবং ২০০০ সাল_ এ তিনবার এ পুরস্কার দেওয়া হয়নি।
পুরস্কারের ক্ষেত্রগুলো হলো : কবিতা, উপন্যাস, নাটক, প্রবন্ধ ও গবেষণা, ছোটগল্প, শিশুসাহিত্য, আত্মজীবনী, স্মৃতিকথা ও ভ্রমণকাহিনী, বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও পরিবেশ, অনুবাদ সাহিত্য।
১৯৬০ সালে প্রথম বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন: আবুল মনসুর আহমদ, ফররুখ আহমদ, আবুল হাশেম খান, মো. বরকত উল্লাহ, খান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন, আসকার ইবনে শাইখ, মুহাম্মদ আবদুল্লাহ-হিল কাফি।
সাহিত্য পুরস্কারের নীতিমালা অনুযায়ী সর্বশেষ ২০১৬ সালের বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন: কবিতায় আবু হাসান শাহরিয়ার, কথাসাহিত্যে শাহাদুজ্জামান, প্রবন্ধ ও গবেষণায় মোরশেদ শফিউল হাসান, অনুবাদে- ড. নিয়াজ জামান, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সাহিত্যে ডা. এমএ হাসান, আত্মজীবনী/স্মৃতিকথায় নূরজাহান বোস, শিশুসাহিত্যে রাশেদ রউফ। অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
হগোলাম কিবরিয়া

মন্তব্য করুন