বাংলাদেশের ক্রিকেটে ঢাকার বাইরে প্রধান ক্রিকেট ভেন্যু বলতে চট্টগ্রাম ও খুলনা। পূর্বাঞ্চলের প্রতিনিধি চট্টগ্রাম, দক্ষিণাঞ্চলের খুলনা। দক্ষিণাঞ্চলে খুলনা একা হলেও, পূর্বাঞ্চলে অবশ্য নতুন ভেন্যু হিসেবে উঠে আসছে সিলেট ও কক্সবাজার। এসব জায়গার আক্ষেপ থাকলেও তাই সেটা দূর করার জোগাড়-যন্ত্র ঠিকই করা আছে। বিস্ময়কর হলো, উত্তরাঞ্চলে সেটা থাকলেও, নানা কারণে এ দিককার মানুষ বড়ই বঞ্চিত!
সব বিবেচনায়, চট্টগ্রাম-খুলনা যে এবার মাশরাফি বাহিনীকে অনেক দিন নিজের কাছে পেল, এও তো কম নয়। ২০১৬ সালের শুরুটা যেন খুলনা ও চট্টগ্রামবাসীর আক্ষেপই ঘুচিয়ে দিয়েছে। জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারির অর্ধেকজুড়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের জন্য দেশের অধিকাংশ ভেন্যুই ব্যস্ত ছিল। যে কারণে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চার ম্যাচের টি২০ সিরিজ খেলতে খুলনায় গিয়েছিলেন টাইগার ক্রিকেটাররা। এরপর আরও এক সপ্তাহ সেখানেই চলে এশিয়া কাপ ও টি২০ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি। কয়েকদিনের ছুটিতে ঢাকা ফিরে এবার ক্রিকেটারদের অভিমুখ চট্টগ্রামে। বন্দরনগরীতে ক্যাম্প হয় দশ দিনের। ১৫ ফেব্রুয়ারি শেষ হয় ক্যাম্প। তার পর কোচের নির্দেশে যে যার মতো গ্রামের বাড়িতে চলে যান। চার দিনের ছুটি শেষে আবারও সবাই একসঙ্গে। এবার আবারও মিরপুর!
যারা ঢাকায় ফিরেছিলেন, তাদের কেউ কেউ অবশ্য ফিটনেস ধরে রাখার সুযোগটা মিস করেননি। তাদেরই একজন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। বুধবার বিসিবি কার্যালয়ে এসেছিলেন পাঞ্জাবি-পায়জামা পরে। বৃহস্পতিবার সে তিনিই অনুশীলন-জার্সিতে মিরপুরের জিমনেসিয়ামে হাজির।
চট্টগ্রাম পর্বের ক্যাম্পে ছিলেন না দলের তিন সিনিয়র খেলোয়াড় সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবাল। পাকিস্তান সুপার লীগ (পিএসএল) খেলতে তারা খুলনা থেকে ঢাকায় ফিরেই উড়াল দেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশে। গত পরশু পিএসএলের নকআউট পর্ব না খেলেই এ তিন অন্যতম প্রধান ভরসা ফিরেছেন দেশে। যদিও অনুশীলনে যোগ দিচ্ছেন শুধু সাকিব ও মুশফিক। সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে তামিম অনেক আগেই ছুটি নিয়ে রেখেছেন। এশিয়া কাপ চলাকালীন তিনি থাকবেন থাইল্যান্ডে। বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপ স্কোয়াডে পরিবর্তন বলতে এই একটাই। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে স্ট্যান্ডবাই হিসেবে থাকা বাঁহাতি ওপেনার ও তামিমের টেস্ট-পার্টনার ইমরুল কায়েসকে নেওয়া হয়েছে দলে।
এশিয়া কাপে বাংলাদেশের প্রথম খেলা ২৪ ফেব্রুয়ারি। ভারতের বিপক্ষে। আজ থেকে তাই পুরো স্কোয়াডকেই কাছে পাচ্ছেন কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। চোট সমস্যাও নেই। চোটের কারণে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শেষ দুই ম্যাচে বিশ্রামে থাকা বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমানও পুরোপুরি সুস্থ।
পুরোদমে সুস্থ পরিবারকে নিয়েই আজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম থেকে নতুন কোনো 'সুখের লাগিয়া' পথ হাঁটা শুরু করবেন বাংলাদেশ কোচ ও অধিনায়ক। সাজাবেন রণকৌশল। ঠিক করে নেবেন সঠিক সমন্বয়। এশিয়া কাপ তাতে মাধ্যম মাত্র। দূর দৃষ্টে তো বিশ্বকাপে!

মন্তব্য করুন