ওপেনিং জুটির অনন্য রেকর্ড

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৭      

স্পোর্টস ডেস্ক

ঠিক আগের ম্যাচটিতে দু'জনে যে দুটি সেঞ্চুরি করেছিলেন, তা ছিল নিজ নিজ ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম শতক। প্রথম ছোঁয়ার পরের ম্যাচে যে ওয়ানডে ইতিহাসেরই গৌরবদীপ্ত এক 'প্রথমে'র জন্ম দিয়ে দেবেন, সেটা বোধহয় নিরোশান ডিকওয়েলা আর ধানুসকা গুনাথিলাকা নিজেরাও ভাবেননি। শ্রীলংকার এই দুই বাঁহাতি ওপেনারের ব্যাটের মাধ্যমে বিশ্ব ক্রিকেট দেখল টানা দুই ম্যাচে ডাবল সেঞ্চুরি জুটির প্রথম কীর্তি! ওয়ানডে ক্রিকেটের কোনো উইকেটেই এমন নজির আগে ছিল না। হাম্বানতোতায় গতকাল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ডিকওয়েলা-গুনাথিলাকা জুটি তুলেছে ২০৯ রান। একই মাঠে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে ২২৯ রান তুলেছিলেন দু'জনে। ডিকওয়েলা-গুনাথিলাকার আগে ওয়ানডেতে টানা দুই ম্যাচে দেড়শ'র বেশি রানের জুটি আছে পাঁচটি। যার মধ্যে এ দু'জনের পূর্বসূরি আশাঙ্কা গুরুসিনহা আর অরবিন্দ ডি সিলভাও আছেন। ১৭২ ও ১৮৩ রানের সেই দুটি জুটি হয়েছিল ১৯৯৬ বিশ্বকাপে, যেখানে প্রতিপক্ষ ছিল জিম্বাবুয়ে এবং কেনিয়া। টানা দুই ম্যাচে দেড়শ'র বেশি রান তোলা পাঁচ জুটির মধ্যে দুটিই আবার ওপেনিংয়ের; পাকিস্তানের সেলিম এলাহি-তৌফিক উমর (২০০২) এবং হাশিম আমলা-কুইন্টন ডি কক (২০১৩)। দুই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানের গত চার বছরে আর কোনো জুটিই টানা দুই ম্যাচে দেড়শ' রান করে তুলতে পারেনি। ডিকওয়েলা-গুনাথিলাকা সেই খরা কাটালেন ডাবল সেঞ্চুরি করে! জুটির রেকর্ডের সঙ্গে তাদের ব্যক্তিগত অর্জনের ঝুলিও বেশ সমৃদ্ধ হয়েছে। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের মাত্র ১৮টি ম্যাচ খেলা ডিকওয়েলা পরপর খেললেন ১০২ ও ১১৬ রানের ইনিংস। তৃতীয় ওয়ানডেতে ২২৯ রানের জুটি গড়ার পথে ডিকওয়েলার সঙ্গে তাল মিলিয়ে সেঞ্চুরি করেছিলেন গুনাথিলাকাও (১১৬)। তবে গতকাল তিন অঙ্কের ঘরে পেঁৗছাতে পারেননি; ম্যালকম ওয়ালারের বলে বোল্ড হওয়ার আগে ১০১ বলে করে যান ৮৭ রান। মূলত গুনাথিলাকার আউটের মাধ্যমেই বিশ্বরেকর্ড গড়া জুটির পথচলা ২০৯ রানে থেমেছে। টানা ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ডের পাশাপাশি মোট দুই ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ডেও ভাগ বসিয়েছেন তারা। ডিকওয়েলা-গুনাথিলাকার আগে ওপেনিংয়ে দুটি করে ডাবল সেঞ্চুরির জুটি গড়ার কৃতিত্ব দেখিয়েছেন আরও আটজন। এর মধ্যে গতকাল ডিকওয়েলার আউটের পর ব্যাট করতে নামা উপল থারাঙ্গাই এমন ঘটনায় জড়িয়ে আছেন ছয়বার। থারাঙ্গা ওপেনিংয়ে ডাবল সেঞ্চুরির জুটি গড়েছেন দু'বার মাহেলা জয়াবর্ধনের সঙ্গে, দু'বার তিলকারত্নে দিলশানের সঙ্গে, দু'বার সনাত জয়সুরিয়ার সঙ্গে (যিনি এখন শ্রীলংকা নির্বাচক দলের প্রধানের দায়িত্বে)। প্রথম উইকেট জুটিতে একাধিক ডাবল সেঞ্চুরির জুটি যে জোড়ার, তারাও এই উপমহাদেশের। পাকিস্তানের জোড়া হচ্ছে রমিজ রাজা-সাঈদ আনোয়ারের, আর ভারতের জোড়া সৌরভ গাঙ্গুলী-শচীন টেন্ডুলকারের।


টানা দুই ম্যাচে ১৫০+ রানের জুটি
জুটি রান প্রতিপক্ষ সময়
ডিকওয়েলা-গুনাথিলাকা ২২৯ ও ২০৭ জিম্বাবুয়ে জুলাই, ২০১৭
হাশিম আমলা-ডি কক ১৫২ ও ১৯৪ ভারত ডিসেম্বর, ২০১৩
সেলিম এলাহি-তৌফিক উমর ১৫৯ ও ১৫৪ জিম্বাবুয়ে নভেম্বর, ২০০২
মোহাম্মদ ইউসুফ-ইউনিস খান ১৫৫ ও ১৬১ শ্রীলংকা ও নিউজিল্যন্ড এপ্রিল, ২০০২
ইনজামাম-সাঈদ আনোয়ার ১৫৭* ও ১৭২ নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলংকা এপ্রিল, ২০০১
অরবিন্দ ডি সিলভা-গুরুসিনহা ১৭২ ও ১৮৩ জিম্বাবুয়ে ও কেনিয়া ফেব্রুয়ারি-মার্চ, ১৯৯৬