ভাবনায় ভবিষ্যতের প্রস্তুতি

ঢাকা ছাড়ছে আজ অনূর্ধ্ব-২৩ দল

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৭      

ক্রীড়া প্রতিবেদক

জাতীয় দল নয়, অনূর্ধ্ব-২৩ দল; তার পরও এ দলটিকে ঘিরে মনোযোগ, পরিকল্পনা, প্রত্যাশা আর ভবিষ্যৎ-ভাবনার কমতি নেই। কারণ আর কিছুই নয়, এখনকার এ দলটিই ঠিক করে দেবে সামনের দিনগুলোয় জাতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করবেন কারা, দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া বাংলাদেশের ফুটবল ঘুরে দাঁড়ানোর মিশনে নামবে কাদের পায়ে ভর করে? ফিলিস্তিনে অনূর্ধ্ব-২৩ এএফসি চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে যাওয়া স্কোয়াড নিয়ে তাই বাড়তি আগ্রহ দেশের ফুটবলাঙ্গনে। মধ্যপ্রাচ্যে খেলার জন্য গতকাল চূড়ান্ত দলও ঘোষণা করা হয়েছে; আজ ২৩ সদস্যের দলটি ঢাকা ছাড়বে।
এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বে বাংলাদেশ খেলবে 'ই' গ্রুপে। স্বাগতিক ফিলিস্তিন, তাজিকিস্তান, জর্ডান ও বাংলাদেশকে নিয়ে এই গ্রুপের খেলাগুলো অনুষ্ঠিত হবে ১৯ থেকে ২৩ জুলাই। প্রথম দিন বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ জর্ডান; দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচ যথাক্রমে ২১ ও ২৩ জুলাই তাজিকিস্তান এবং ফিলিস্তিনের বিপক্ষে। চূড়ান্ত লড়াইয়ে নামার আগে দেশের বাইরে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে বাংলাদেশ। যার একটি ১৩ জুলাই দোহায় কাতার অনূর্ধ্ব-২৩ দলের বিপক্ষে, অন্যটি নেপালের বিপক্ষে এই মঙ্গলবারে। বাংলাদেশ দল আজ তাই ঢাকা ছেড়ে যাচ্ছে কাঠমান্ডুর উদ্দেশে। এএফসির চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইয়ে নামার আগে এখনও যে প্রস্তুতি বাকি আছে, গতকাল আয়োজিত আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে সেটাই মনে করিয়ে দিলেন কোচ অ্যান্ডু্র অর্ড। জাতীয় দলের কোচ হলেও আপাতত তাকে অনূর্ধ্ব-২৩ দল সামলাতে হচ্ছে। অস্ট্রেলীয় এ কোচ দায়িত্ব নিয়েই অনূর্ধ্ব-২৩ দল গঠন করতে ৩৬ জন ফুটবলার নিয়ে বিকেএসপিতে ক্যাম্প শুরু করেছিলেন। ঈদের আগে-পরে চারজন করে আটজন আর শুক্রবার ঢাকা আবাহনীর বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচের পর আরও পাঁচজনকে বাদ দিয়ে ২৩ জনের স্কোয়াড চূড়ান্ত করেছেন। গতকাল এ ২৩ জনের নাম ঘোষণার সময় অবশ্য অধিনায়ক নির্বাচন করেননি। নেপাল ও কাতারের দুটি প্রস্তুতি ম্যাচের পরই আর্মব্যান্ডধারী খুঁজে নেবেন অর্ড। তার আগে জানিয়ে গেলেন এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ চ্যাম্পিয়নশিপে বড় কোনো চাওয়া নেই তার, আছে ভালো শুরুর প্রত্যাশা, 'আমাদের প্রস্তুতি এখনও শেষ হয়নি। গত দুই সপ্তাহে মাত্র কয়েকটি ট্রেনিং সেশন আর একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি। এটা চলমান প্রক্রিয়া। আমরা হয়তো ফিলিস্তিনে গিয়ে পরের রাউন্ডে নাও যেতে পারি। কিন্তু একটা ভালো শুরু করতে চাই। আমরা আত্মবিশ্বাসী। আশা করি ছেলেরা ওখানে তাদের সর্বোচ্চটাই দেবে।'
আগামী সাফ ও বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের জন্য জাতীয় দল গঠন করা হবে মূলত এ দলটির ওপর ভিত্তি করেই। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের জাতীয় দল কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদও পরিষ্কার করে বললেন সেই ভবিষ্যৎ-ভাবনার কথা, 'ভুটান বিপর্যয়ে আমাদের ঝড়ের মুখে ফেলে দিয়েছিল। আমরা চেষ্টা করেছি ভালো কিছু করতে। এখন যেখানে অংশ নেব, সেটা অত্যন্ত কঠিন টুর্নামেন্ট। তিনটা দলই শক্তিশালী। এখানে হঠাৎ করে ভালো ফল আশা করা একটু অবাস্তব প্রত্যাশা। আমরা এই টুর্নামেন্ট খেলছি ভবিষ্যতের প্রস্তুতির জন্য। সেটিরই একটি পরীক্ষামূলক ও প্রস্তুতিমূলক টুর্নামেন্ট হিসেবে দেখছি এই প্রতিযোগিতাকে।'
২৩ সদস্যের অনূর্ধ্ব ২৩ দল :সোহেল রানা, রুবেল মিয়া, টুটুল হোসেন বাদশা, সাদ উদ্দিন, মাসুক মিয়া জনি, নুরুল নাইমুল ফয়সাল, জাফর ইকবাল, মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, সুশান্ত ত্রিপুরা, মোহাম্মদ নাঈম, সোহেল মিয়া, মাহফুজ হাসান প্রিতম, আতিকুজ্জামান, দিদারুল আলম, খালেকুজ্জামান সবুজ, ফজলে রাবি্ব, তকলিচ আহমেদ, মনজুরুর রহমান, আসাদুজ্জামান বাবলু, জুয়েল রানা, হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাস, আনিসুর রহমান ও রহমত মিয়া। অপেক্ষমাণ :সুজন হোসাইন, মনসুর আমিন, ইব্রাহিম, জামান নিপু।