বিশ্ব একাদশে তামিম

প্রকাশ: ২৫ আগস্ট ২০১৭

ক্রীড়া প্রতিবেদক

আনন্দে ভাসছে পাকিস্তানের ক্রিকেটপাগল মানুষ। আবার তাদের দেশে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরছে। ঘরের মাঠে আবার তারা ক্রিকেট উপভোগ করতে পারবেন। পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফিরছে বিশ্ব একাদশের তিনটি প্রীতি ম্যাচ দিয়ে। গতকাল ঘোষিত বিশ্ব একাদশে স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশের তারকা ওপেনার তামিম ইকবালও। এই প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের কোনো ক্রিকেটারের বিশ্ব একাদশে স্থান পেলেন। এর আগে মাশরাফি মুর্তজা খেলেছিলেন এশিয়া একাদশের হয়ে। সাত দেশের ক্রিকেটারদের নিয়ে গড়া দলটির নেতৃত্ব দেবেন দক্ষিণ আফ্রিকার ফাফ ডু প্লেসিস।
পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরানোর প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে হবে 'ইন্ডিপেনডেন্স কাপ' নামের এ সিরিজ। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ম্যাচ তিনটি হবে ১২, ১৩ ও ১৫ সেপ্টেম্বর। তিনটি ম্যাচই আন্তর্জাতিক টি২০ ম্যাচের মর্যাদা পাবে। দুবাইয়ে দু'দিনের ক্যাম্প শেষে ১১ সেপ্টেম্বর লাহোর যাবে বিশ্ব একাদশ। সংশ্লিষ্ট বোর্ড ও ক্রিকেটারের সম্মতিক্রমেই সাজানো হয়েছে ১৪ সদস্যের বিশ্ব একাদশ। এখানে তামিম যেমন আছেন, তেমনি আছেন অবসরে যাওয়া ইংলিশ অলরাউন্ডার পল কলিংউড। এ দলে সর্বোচ্চ পাঁচজন ক্রিকেটার আছেন দক্ষিণ আফ্রিকার। অধিনায়ক ডু প্লেসিসের সঙ্গে আছেন হাশিম আমলা, ডেভিড মিলার, মরনে মরকেল ও ইমরান তাহির। অস্ট্রেলিয়ার আছেন তিন ক্রিকেটার_ জর্জ বেইলি, বেন কাটিং ও টিম পাইন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ড্যারেন স্যামি ও স্যামুয়েল বদ্রি। এ ছাড়া নিউজিল্যান্ডের গ্রান্ট এলিয়ট, শ্রীলংকার থিসারা পেরেরা ও ইংল্যান্ডের পল কলিংউড। আর কোচ হিসেবে আছেন জিম্বাবুয়ের অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার।
২০০৯ সালে শ্রীলংকা ক্রিকেট দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এক প্রকার নির্বাসনেই আছে। জিম্বাবুয়ে ও আফগানিস্তান ছাড়া আর কোনো দেশ যায়নি পাকিস্তান সফরে। তবে কিছুদিন ধরে পাকিস্তানে ক্রিকেট ফেরানোর জন্য মরিয়া হয়ে চেষ্টা করছে পিসিবি। সে লক্ষ্যেই তারা এ বছর পিএসএল ফাইনাল আয়োজন করেছিল পাকিস্তানে। সে ম্যাচটি খেলতে লাহোর গিয়েছিলেন বাংলাদেশের এনামুল হক বিজয়। মোটা অর্থের লোভে গেলেও দেশে ফিরে বিজয় জানিয়েছিলেন পুরো পারিশ্রমিক পাননি তিনি। ইন্ডিপেনডেন্স কাপ খেলতে যাওয়া বিশ্ব একাদশের ক্রিকেটারদেরও বিপুল অর্থ দেওয়া হচ্ছে। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে জানা গেছে, সে অর্থের পরিমাণ বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৮০ লাখ।
বিশ্ব একাদশের অধিনায়ক মনোনীত হওয়ায় বেশ খুশি দক্ষিণ আফ্রিকার ফাফ ডু প্লেসিস, 'এমন একটি দুর্দান্ত দলের অধিনায়ক হতে পেরে আমি ভীষণ সম্মানিত বোধ করছি। দলের অধিকাংশ ক্রিকেটারের মতো আমারও প্রথমবারের মতো পাকিস্তান সফর। আশা করছি, পাকিস্তান সবার জন্য নিরাপদ হবে এবং সেখানে আবার ক্রিকেট ফিরবে। এ সিরিজের সঙ্গে জড়িত সবার নিরাপত্তার বিষয়টি হলো সবার আগে। আমরা যদি নিরাপদ বোধ না করি তাহলে কোনো পরিমাণ অর্থই আমাদের সেখানে নিতে পারবে না।'
বিশ্ব একাদশের এ সফরকে স্বাগত জানিয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। বিশ্ব একাদশের এ সিরিজ শেষে শ্রীলংকা ক্রিকেট দলকে দেশে নিতে জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান। পুরো সিরিজ আরব আমিরাতে হলেও একটি টি২০ ম্যাচ লংকানরা লাহোরে খেলতে রাজি হয়েছে বলে জানা গেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজও নাকি একটি ম্যাচ খেলতে পাকিস্তান যেতে পারে।