হতাশাই যেন সঙ্গী

প্রকাশ: ০৭ এপ্রিল ২০১৮      

গোল্ড কোস্ট থেকে, মশিউর রহমান টিপু

হতাশাই যেন সঙ্গী

বেলমন্ট শুটিং সেন্টারের রেঞ্জে বৃহস্পতিবার নিবিড় অনুশীলনে বাংলাদেশের শুটাররা - সংগৃহীত

'এলাম, দেখলাম, জয় করলাম।' বড় কোনো খেলার আসরে অংশ নিতে আসা বাংলাদেশ দলের বেশিরভাগ ক্রীড়াবিদের ক্ষেত্রে বিখ্যাত উক্তিটি সম্ভবত সামান্য একটু ঘুরিয়ে বললেই বেশ মানিয়ে যেতে পারে। যেমন- এলাম, দেখলাম ও খালি হাতে ফিরে গেলাম! গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমসে গতকাল সাঁতার ও ভারোত্তোলনে খেলা ছিল বাংলাদেশের। দুই ভেন্যুতেই দলের ক্রীড়াবিদরা যথারীতি ব্যর্থ হয়েছেন। এর মধ্যে অপটাস অ্যাকুয়াটিক সেন্টারে পুরুষদের ১০০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোক সাঁতারে আরিফুল এবং মেয়েদের ৫০ মিটার ফ্রিস্টাইলে নাজমা হিটেই বাদ পড়েছেন।

নিজের ইভেন্টে আরিফুল হিটে আটজনের মধ্যে সপ্তম হয়েছেন। ইভেন্টের ২৯ জনের মধ্যে অবস্থান ২০ নম্বরে। আরিফুল সাঁতার শেষ করেন ১ মিনিট ০৭.৫১ সেকেন্ডে। গেমসের টাইম রেকর্ড অনুসারে এটাই আরিফুলের ব্যক্তিগত সেরা টাইমিং। আর তাতেই আপ্লুত এই সাঁতারু পুল থেকে ওঠার পর জানান, তার লক্ষ্য পূরণ হয়েছে। অন্যদিকে ৫০ মিটার ফ্রিস্টাইলে নাজমা তার ইভেন্টের হিটে পাঁচজনের মধ্যে সবার শেষে সাঁতার শেষ করেছেন। ৩১.১০ সেকেন্ড সময় নিয়ে ৪০ জনের মধ্যে তার অবস্থান ৩৭তম।

ফাহিমার দৃষ্টিকটু উদযাপন :এদিকে পাশের দেশ ভারতের ভারোত্তোলকরা যেখানে একের পর এক সোনালি সাফল্য দেখিয়ে চলেছেন সেখানে বাংলাদেশের ক্রীড়াবিদরা ছিলেন একেবারেই ম্রিয়মাণ। গতকাল কারারা স্পোর্টস অ্যান্ড লেইজার সেন্টারে নারীদের ৫৮ কেজি ওজন শ্রেণিতে ১৫৪ কেজি তুলে ১৪ জনের মধ্যে ত্রয়োদশ হয়েছেন ফাহিমা আকতার ময়না। স্ন্যাচে তিনি তোলেন ৬৬ কেজি। ক্লিন জার্কে তোলেন প্রথম দফায় ৮০, দ্বিতীয় দফায় ৮৫ এবং তৃতীয়তে ৮৮ কেজি। আর এটা করার পর তিনি যা করেছেন তা ছিল খুবই দৃষ্টিকটু। আনন্দে আত্মহারা ফাহিমা দৌড়ে গিয়ে ঝাঁপ দেন কোচ বিদ্যুতের কোলে। এরপর কদমবুচি করেন উপস্থিত কর্মকর্তাদের। ৮৮ কেজি তোলার পর এমন বেমানান বাঁধনহারা আনন্দ রীতিমতো বিদ্রুপের বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। একই ভেন্যুতে এদিন ৬৯ কেজি ওজন শ্রেণিতে ডিসকোয়ালিফাইড হয়ে যান শিমুল কান্তি। এ ছাড়া নারীদের ৫৩ কেজি ওজন শ্রেণিতে ১৪ জনের মধ্যে ১২তম হয়েছেন ফুলপতি। তিনি স্ন্যাচে ৬৮ কেজি এবং ক্লিন জার্কে ৮৫ কেজি মিলিয়ে ১৫৩ কেজি তুলে প্রতিযোগিতা শেষ করেন। এই ইভেন্টে ১৯২ কেজি (৮৪ ও ১০৮) ওজন তুলে স্বর্ণ জিতেছেন ভারতের মণিপুর রাজ্যের মেয়ে সঞ্জিতা চানু খুমাকচাম।

মাবিয়াকে ঘিরে প্রত্যাশা :ভারোত্তোলনে নারীদের ৬৩ কেজি ওজন শ্রেণিতে আজ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন মাবিয়া আক্তার। টিমটিম করে হলেও কিছুটা আশার আলো জ্বলছে সর্বশেষ এসএ গেমসে স্বর্ণজয়ী এই ভারোত্তোলককে ঘিরে। বাকিটা দেখার জন্য আজ সকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হচ্ছে।