ফিরছেন মুশফিক

প্রকাশ: ১৪ মার্চ ২০১৯

ক্রীড়া প্রতিবেদক

আঙুল ও কব্জির চোটের কারণে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে খেলতে পারেননি মুশফিকুর রহিম। তবে মাঠের বাইরে থাকার এই সময়টায় চোট অনেকটাই কাটিয়ে উঠেছেন দলের এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। ক্রাইস্টচার্চে সিরিজের শেষ ম্যাচে মুশফিকের মাঠে নামার সম্ভাবনাও তাই অনেকটা উজ্জ্বল। সফরে বাংলাদেশ দলের ম্যানেজারের দায়িত্বে থাকা খালেদ মাসুদ পাইলট জানিয়েছেন এমনটাই। 'এ মুহূর্তে মুশফিকের অবস্থা বেশ ভালো। শনিবার থেকে তৃতীয় টেস্ট, সেখানে সে খেলতে পারবে আশা করি। নেটে কোনো সমস্যা ছাড়াই ব্যাটিং করেছে সে। কখনোই মনে হয়নি যে, সে ছন্দে নেই। নতুন করে আবার কোনো চোট না হলে তার না খেলার কোনো কারণ দেখছি না। সবকিছু মিলিয়েই তাই শেষ টেস্টে মুশফিককে দলে পাওয়ার ব্যাপারে টিম ম্যানেজমেন্ট আত্মবিশ্বাসী।'

মুশফিক যদি শেষ পর্যন্ত খেলেন, তবে ওয়েলিংটন টেস্টের একাদশ থেকে একজনকে বাদ দিতে হবে। সেই একজন কে হবেন, সেটাই এখন সিদ্ধান্ত নিতে হবে টিম ম্যানেজমেন্টকে। এই সিরিজে এখনও পর্যন্ত ব্যাট হাতে খুব একটা ভালো করতে পারেননি লিটন দাস ও মোহাম্মদ মিঠুন। মুশফিককে জায়গা করে দিতে তাই এই দু'জনের একজনেরই বাদ পড়ার সম্ভাবনা প্রবল। তবে কিপিংয়ের বদৌলতে টিকে যাওয়ার সম্ভাবনা খানিকটা হলেও বেশি লিটনের।

বাংলাদেশ দলের সর্বশেষ নিউজিল্যান্ড সফরেই ভালো পারফরম্যান্স করার সুখস্মৃতি রয়েছে মুশফিকের। সেবার ওয়েলিংটন টেস্টে দলের প্রথম ইনিংসে মুশফিক খেলেছিলেন ১৫৯ রানের চমৎকার এক ইনিংস। এবার প্রথম দুই টেস্ট মাঠে নামতে না পারায় তৃতীয় টেস্টে নিশ্চয়ই ভালো করার ক্ষুধাটা আরও বেশি থাকবে এই ক্রিকেটারের। ব্যাটসম্যানদের বাজে পারফরম্যান্সের মাশুল দিয়ে ওয়েলিংটন টেস্টহারা দলকে মানসিকভাবেও শক্তি জোগাবে দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানের প্রত্যাবর্তন।

ক্যারিয়ারসেরা র‌্যাংকিংয়ে মাহমুদুল্লাহ :তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুটি ম্যাচেই ইনিংস ব্যবধানে পরাজয়- নিউজিল্যান্ড সফর এখনও পর্যন্ত কোনো ভালো খবর দেয়নি বাংলাদেশ দলকে। দলীয় ব্যর্থতার পাশে খুব ফিকে মনে হলেও ব্যক্তিগত কিছু সাফল্য অবশ্য এসেছে। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের ক্ষেত্রেই যেমন। হ্যামিল্টন টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছিলেন। এরপর ওয়েলিংটন টেস্টেও বিরুদ্ধ স্রোতে দাঁড়িয়ে করেছেন ফিফটি। র‌্যাংকিংয়ে পড়েছে সেটারই প্রতিফলন। ক্যারিয়ারসেরা র‌্যাংকিংয়ে উঠে এসেছেন দলের এই ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক।

হ্যামিল্টন টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের দুই সেঞ্চুরিয়ানের একজন ছিলেন মাহমুদুল্লাহ। ১৪৬ রানের চমৎকার এক ইনিংস খেলার সুবাদে তখন টেস্ট ব্যাটসম্যানদের র‌্যাংকিংয়ে ৪০ নম্বরে উঠে এসেছিলেন তিনি। ওয়েলিংটন টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে করা ৬৭ রানের ইনিংসে আরও কিছুটা এগিয়েছেন এই ক্রিকেটার। ছয় ধাপ এগিয়ে এখন তিনি ক্যারিয়ারসেরা ৩৪ নম্বর অবস্থানে। রিয়াদের পাশাপাশি উন্নতি হয়েছে দলের ওপেনার সাদমান ইসলামেরও। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান প্রথমবারের মতো ঢুকে গেছেন ব্যাটসম্যানদের সেরা একশ'র তালিকায়। বর্তমানে তার অবস্থান ৯৮।

সিরিজে এখন পর্যন্ত ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করা নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটারদের কয়েকজন দিয়েছেন আরও বড় লাফ। ওয়েলিংটন টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৯ উইকেট নেওয়ার সুবাদে প্রথমবারের মতো টেস্ট বোলারদের র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষ পাঁচে উঠে এসেছেন কিউই পেসার নিল ওয়াগনার। পাঁচ নম্বরে থাকা এই বোলারের বর্তমান রেটিং পয়েন্ট ৮০১। রিচার্ড হ্যাডলি ও ট্রেন্ট বোল্টের পর তৃতীয় কিউই পেসার হিসেবে র‌্যাংকিংয়ে ৮০০ বা তার বেশি পেলেন ওয়াগনার।