শুক্রবার সারাদিন (নিউজিল্যান্ড সময়)

প্রকাশ: ১৬ মার্চ ২০১৯     আপডেট: ১৬ মার্চ ২০১৯      

দুপুর ১.০০

দুপুর ১টায় টিম হোটেল থেকে হ্যাগলি ওভালে আসে বাংলাদেশ দল। আকাশ মেঘলা ছিল, বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা ছিল। তাই শুরুতেই ঠিক হয় আগে জুমার নামাজ আদায় করে তারপর কাছের লিঙ্কন ইউনিভার্সিটির ইনডোরে গিয়ে অনুশীলন করা হবে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত লিঙ্কন বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার প্রোগামটি বাতিল হয়ে যায়।

দুপুর ১.২৭

বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ প্রি-ম্যাচ সংবাদ সম্মেলনে আসেন। প্রায় নয় মিনিট কথা বলেন তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে। তার জন্য তখনও বাকি ক্রিকেটাররা মসজিদে যাওয়ার জন্য তৈরি হয়ে অপেক্ষা করেছিলেন।

দুপুর ১.৩৫

মসজিদে যাওয়ার জন্য পার্ক করে রাখা বাসে ওঠেন ১৭ জন। যাদের মধ্যে ম্যানেজার খালেদ মাসুদ পাইলট ছাড়াও ছিলেন টিম অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাস চন্দ্রশেখরন এবং বল বয় মোহাম্মদ সোহেল।

দুপুর ১.৫২

প্রেসবক্সে থাকা বাংলাদেশি সাংবাদিকের কাছে তামিমের ফোন- ভাই আমাদের বাঁচান। মসজিদে গুলি চলছে। পুলিশকে খবর দেন।

দুপুর ২.০২

বাস থেকে নেমে দ্রুত হাঁটছেন বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা। প্রায় পনেরো মিনিট হেঁটে তারা হ্যাগলি ওভালে এসে পৌঁছান। কেউ তখন তাদের বলছিল দৌড়ানো যাবে না, দ্রুত হাঁটতে হবে।

দুপুর ২.০৮

ড্রেসিংরুমে পৌঁছে তামিম-মুশফিকরা একে অন্যকে জড়িয়ে ধরতে থাকেন।

দুপুর ২.৪৫

হ্যাগলি ওভাল থেকে বাংলাদেশ দলকে পুলিশ কর্ডনে টিম হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিকেল ৫.০০

ক্রাইস্টটেস্ট বাতিলের ঘোষণা আসে। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, দুই বোর্ডের সম্মতিতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সন্ধ্যা ৬.৩০

প্রেসবক্সে আটকে থাকা বাংলাদেশি সাংবাদিকদের টিম হোটেলে নিয়ে যাওয়া হয়।

সন্ধ্যা ৭.৩০

টিম হোটেলে উপস্থিত বাংলাদেশি সাংবাদিকদের পুরো ঘটনার বর্ণনা দেন ম্যানেজার খালেদ মাসুদ পাইলট।

রাত ৮.০০

পুরো দল একসঙ্গে রাতের খাবার খেতে বসে।