তামিমের পরিবারের টেনশন কাটেনি

প্রকাশ: ১৬ মার্চ ২০১৯      

রুবেল খান, চট্টগ্রাম

নিউজিল্যান্ডে বন্দুকধারীদের নৃশংস সন্ত্রাসী হামলার খবর পাওয়ার পর থেকেই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন বাংলাদেশ দলের তারকা ওপেনার তামিম ইকবালের মা নুসরাত ইকবাল। ছেলে নিরাপদে আছেন জেনেও কান্না থামছে না তার। কাটছে না টেনশনও। শুধু তামিমের মা নন, বড় ভাই নাফিস ইকবাল খান, স্ত্রী আয়েশা ইকবালসহ পুরো পরিবারের মধ্যেই বিরাজ করছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। যতক্ষণ পর্যন্ত তামিমসহ পুরো ক্রিকেট টিম দেশে ফিরে না আসছে, ততক্ষণ পর্যন্ত স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারছেন না তারা।

বন্দুকধারীদের নারকীয় ওই হামলার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সেলফোনে তামিমের সঙ্গে কথা বলেছেন বড় ভাই নাফিস ইকবাল। এ সময় তামিম জানিয়েছেন তিনি ও বাংলাদেশ দলের সবাই নিরাপদে আছেন। নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচটি নিরাপত্তাজনিত কারণে বাতিল করা হয়েছে। তামিমসহ পুরো টিম আজ শনিবার দেশে ফিরবেন। তামিমের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি পরিবারের সদস্যদের জানিয়েছেন তামিমের বড় ভাই নাফিস ইকবাল।

এ প্রসঙ্গে নাফিস ইকবাল সমকালকে বলেন, 'নিউজিল্যান্ডের ভয়ঙ্কর ওই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনাটি যখন শুনি তখন আমি ঢাকার মাঠে ছিলাম। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সেখান থেকেই তামিমকে ফোন করি। ফোনে পুরো ঘটনা শুনে আমি হতভম্ব হয়ে পড়ি। এমন নৃশংস ঘটনা নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ঘটতে পারে, তা কল্পনাতেও আসেনি। এ ন্যক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। এ ঘটনায় যাদের আকস্মিক মৃত্যু হয়েছে, তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই। সেইসঙ্গে তামিমসহ বাংলাদেশ দলের সবাই অক্ষত থাকায় আল্লাহর দরবারে শোকরিয়া জানাই। তামিম আমাকে ফোনে জানিয়েছে, তামিমসহ বাংলাদেশ দলের সবাই হোটেলে নিরাপদে রয়েছেন। ওই ঘটনার পর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের শেষ টেস্ট ম্যাচও বাতিল করা হয়েছে। দলের সবাই আগামীকাল (আজ শনিবার) দেশে ফিরে আসছেন তারা। তামিমের সঙ্গে কথা বলে আমি আমার পরিবারের সবাইকে জানিয়েছি। ওই ঘটনা শোনার পর থেকে আমার মা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছেন। মানসিকভাবেও ভেঙে পড়েছেন। কান্না করছেন। তামিমসহ পুরো টিম দেশে না আসা পর্যন্ত আমাদের কারোরই স্বস্তি নেই। এখনও উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। তামিমসহ পুরো দলের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাইছি।'

তামিম ইকবালসহ বাংলাদেশ দলের সবাই নিরাপদ থাকার খবর পেয়ে যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছেন তামিমপত্নী আয়েশা ইকবাল খান। নিজের ফেসবুক বার্তায় তিনি লিখেছেন, 'ক্রাইস্টচার্চের মসজিদের ওই ভয়ানক খবর শুনে ঘুম থেকে উঠেছি। ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য আমার প্রাণ বেরিয়ে যাচ্ছিল। আল্লাহ তাদের পরিবারকে শোক সইবার শক্তি দিন।' তিনি আরও লিখেছেন, 'আপনাদের সকল মেসেজের জন্য ধন্যবাদ। আলহামদুলিল্লাহ, তামিম নিরাপদে আছে। সবাই তামিমের জন্য দোয়া করবেন।'