এবার বিদেশে নিরাপত্তার দিকে বিসিবির নজর

প্রকাশ: ১৬ মার্চ ২০১৯      

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে সন্ত্রাসী ঘটনায় বিরাট ধাক্কা খেয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ৪৯ জন নিহত হওয়া ওই সন্ত্রাসী হামলা থেকে অনেকটা ভাগ্যগুণে প্রাণে বেঁচে গেছেন তামিম-মুশফিকরা। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ থেকে যাওয়া গণমাধ্যমকর্মীরা অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে বাড়তি কিছু প্রশ্ন করে নয় মিনিট দেরি করিয়ে দিয়েছিলেন। তা না হলে কী যে হতো, সেটা কল্পনা করলেও শিউরে উঠতে হয়! কারণ তিন-চার মিনিট আগে রওনা হলেই সে ভয়াবহ হামলায় পড়তেন তারা। স্বভাবতই এ ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে বিসিবি। গতকাল বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, এখন থেকে যত উন্নত দেশেই বাংলাদেশ দল খেলতে যাক না কেন, সর্বোচ্চ নিরাপত্তার আশ্বাস না পেলে সেখানে দল পাঠানো হবে না।

হ্যাগলি ওভাল মাঠ থেকে বাংলাদেশ দলের সদস্যরা যখন জুমার নামাজ আদায়ের জন্য 'আল নূর' মসজিদে যান তখন তাদের সঙ্গে কোনো নিরাপত্তারক্ষী ছিল না। এমনকি লিয়াজোঁ কর্মকর্তা পর্যন্ত তাদের সঙ্গে ছিলেন না। কেবল বাস ড্রাইভার তাদের মসজিদে নিয়ে যান। এ ঘটনা বিসিবি সভাপতির মনে নিরাপত্তা নিয়ে নতুন উপলব্ধি নিয়ে এসেছে। তিনি পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছেন যে, ভবিষ্যতে নিরাপত্তা নিয়ে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। সেটা যত উন্নত দেশই হোক, 'আমাদের দেশে কেউ যখন আসে, তখন তারা যে ধরনের নিরাপত্তার কথা বলে, সেটাই দিতে হয়। তবে আমরা এখন পর্যন্ত এমন কিছু পাইনি। তবে আজকের ঘটনার পর সব বদলে যাবে। এখন থেকে যে দেশেই আমাদের দল যাক না কেন, আমাদের চাওয়া মতো নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এটা যারা দিতে পারবে তাদের ওখানেই আমরা খেলতে যাব, না হলে খেলতে যাওয়া সম্ভব নয়।'

কীভাবে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে সে ধারণাও দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি, 'আমাদের সব কিছু সামলে নিয়ে দেখতে হবে নিরাপত্তার জন্য কী কী দরকার। কোনো দেশে যখন আমরা খেলতে যাচ্ছি, ওই দেশ কী দিতে পারবে, আমাদের তরফ থেকে কী প্রয়োজন সেটা দেখতে হবে। আমার ধারণা, এখন কোনো দেশই নিরাপত্তা নিয়ে ছাড় দেবে না। এত দিন আমাদের এটা করা যে দরকার তা মনেই হয়নি, প্রয়োজনই হয়নি। অন্যরা নিরাপত্তা পাচ্ছে, আমরা পাচ্ছি না- বিষয়টি আসলে তা নয়। সবাই চিন্তামুক্ত থেকে ওইসব দেশে খেলতে যায়।'

বিসিবি সভাপতির ধারণা, এমন একটি ভয়াবহ কাণ্ড ঘটতে পারে সেটা নাকি কিউইরা কল্পনাও করতে পারেনি। এ কারণেই তারা অপ্রস্তুত ছিল বলেও মনে করছেন তিনি, 'আপনি যদি পুরো ঘটনাটি দেখেন, আমার কাছে যেটা মনে হয়েছে, এ ধরনের ঘটনা যে ঘটতে পারে এমন কোনো ধারণাই তাদের ছিল না। ঘটনাস্থলে পুলিশ আসতে যে সময়টা লেগেছে এটাই তো অবাক করার মতো। আমার মনে হয় না আমাদের দেশে বা আশপাশের কোনো দেশে এমন কিছু হলে পুলিশ আসতে এত সময় লাগত। আমার মনে হয়েছে তারা হয়তো অপ্রস্তুত ছিল।' বিসিবি সভাপতি মনে করিয়ে দেন যে, বিশ্বের যে কোনো জায়গায় এমন ঘটনা ঘটতে পারে। তাই যে দেশেই খেলা হোক না কেন, নিরাপত্তা নিয়ে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে সবাইকে।