বিশ্বকাপ দলে জায়গা দিতে না পারায় ইয়াসির আলী রাব্বিকে পুরস্কৃত করা হয় আয়ারল্যান্ডের ত্রিদেশীয় সিরিজের স্কোয়াডে রেখে। ত্রিদেশীয় সিরিজে ম্যাচ খেলার সুযোগ দিয়ে তাকে পরখ করে দেখতে চেয়েছিল টিম ম্যানেজমেন্ট। শেষ পর্যন্ত ইয়াসিরকে পরখ বা পরীক্ষা করে দেখার সুযোগ হয়নি। কোনো ম্যাচ না খেলে শেষতক শনিবার দেশে ফেরেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। এই সফরে বাংলাদেশ স্কোয়াডের সদস্য হলেও দর্শক হয়েই কাটাতে হয় তাকে। আন্তর্জাতিক অভিষেক না হলেও জাতীয় দলের ক্রিকেটারের স্বীকৃতি নিয়ে ড্রেসিংরুমের ড্রেস রিহার্সেল হয়েছে তার, 'ম্যাচ খেলিনি, কিন্তু ভালো একটা অভিজ্ঞতা হয়েছে। স্কোয়াডের সিনিয়র জুনিয়র সবার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। আন্তর্জাতিক ড্রেসিংরুম সম্পর্কেও জানলাম। সব মিলিয়ে ভালো অভিজ্ঞতা নিয়েই ফিরেছি।'

বিশ্বকাপ স্কোয়াডের সঙ্গে ইয়াসিরকে রেখে ত্রিদেশীয় সিরিজের দল গড়া হয়েছিল। বাড়তে বাড়তে শেষ পর্যন্ত সেটা ১৯ জনে গিয়ে ঠেকে। অতিরিক্ত তালিকায় চারজন হওয়ায় তাদের কাউকেই ত্রিদেশীয় সিরিজে খেলাতে পারেনি টিম ম্যানেজমেন্ট। একপ্রকার দর্শক হয়েই ডাবলিনের ১৭ দিন কেটেছে ফরহাদ, তাসকিন, নাঈম ও ইয়াসিরের। তবে একদিক থেকে ইয়াসিরকে সৌভাগ্যবানই বলা যায়, 'শিরোপাজয়ী দলের সদস্য হতে পারা বিরাট প্রাপ্তি। সবার ভাগ্যে এটা হয় না। এদিক দিয়ে আমি সৌভাগ্যবান।' ইয়াসির জানান, ম্যাচ খেলার সুযোগ দিতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধান কোচ স্টিভ রোডস, 'কোচিং স্টাফের সঙ্গে মেশার সুযোগ হয়েছে। প্রধান কোচ বলেছেন, ভবিষ্যতের জন্য তৈরি হতে। মন খারাপ না করতে।'

ত্রিদেশীয় সিরিজে স্কোয়াডের আরেক সদস্য অলরাউন্ডার ফরহাদ রেজা জাতীয় দলে ফিরেছিলেন পাঁচ বছর পর। এই সফরে তার অভিজ্ঞতা বলতে, একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে খেলা। টুর্নামেন্টে কোনো ম্যাচ না খেললেও হতাশ নন ফরহাদ, 'সফরটা ভালোই গেছে। ম্যাচ খেলা না হলেও দলের সবার সঙ্গে একটা সখ্য গড়ে উঠেছে। সম্পর্ক পুনরুজ্জীবিত হওয়াতেই আমি খুশি। এ ছাড়া একটা টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য হতে পারাও প্রাপ্তি।' কোচ অবশ্য ফরহাদকে প্র্যাকটিস ধরে রাখতে বলেছেন। যে কারণে গতকাল সকালে দেশে ফিরে দুপুরেই প্রিমিয়ার লীগের 'এলিট প্লেয়ার্স' ক্যাম্পে যোগ দেন তিনি, 'দেশে ফিরেই একটা ক্যাম্প পেয়ে গেলাম, প্র্যাকটিসের মধ্যেই থাকতে পারছি। সামনে কোনো সুযোগ এলে এটা কাজে লাগবে।' নির্বাচক হাবিবুল বাশার জানান, দেশে ফেরা চার ক্রিকেটারকে ছুড়ে ফেলছেন না তারা। জাতীয় দলের সামনের সিরিজগুলোর জন্য বিবেচনায় থাকবেন তাদের প্রত্যেকে।

মন্তব্য করুন