জয় ছাড়া বিকল্প নেই :মাশরাফি

প্রকাশ: ১১ জুন ২০১৯

জয় দিয়ে উড়ন্ত সূচনা। এরপর টানা দুই ম্যাচ হেরে দুশ্চিন্তায়। সেমিফাইনাল খেলার স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে শ্রীলংকার বিপক্ষে আজ জিততেই হবে মাশরাফিদের। সোমবার ব্রিস্টলে ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অধিনায়ক জানান, জয়ে ফিরতে মুখিয়ে আছেন খেলোয়াড়রা

প্রশ্ন :নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের কাছে হারের পর ক্যাম্পের মুড কেমন। আর কাল (আজ) কি পুরো ম্যাচ হবে বলে আশা করেন?

মাশরাফি :আশা করি, পুরো ম্যাচ খেলা হবে। আর দলের ভেতরের পরিবেশ ভালো আছে। নিউজিল্যান্ডের কাছে হারটা হতাশাজনক। এ ধরনের টুর্নামেন্টে এটা হতেই পারে। তবে এখনও সবকিছু শেষ হয়ে যায়নি। ছেলেরা ম্যাচ জেতার জন্য মুখিয়ে রয়েছে। সুতরাং দল ভালো আছে।

প্রশ্ন :শ্রীলংকার সঙ্গে গত দুই বছর ভালো খেলেছে বাংলাদেশ। র‌্যাংকিংয়েও তারা পেছনে।

মাশরাফি :আমরা কালকের (আজকের) ম্যাচ নিয়ে ভাবছি। পুরো মনোযোগ এই ম্যাচ নিয়ে। অতীতে কী হয়েছে, ওসব ভাবনার সময় এখন নয়। ইংল্যান্ড ম্যাচের আগের দিনও একই রকম প্রশ্ন করা হয়েছিল- আমরা টানা দুই বিশ্বকাপে তাদের হারিয়েছি, এবার হ্যাটট্রিক হবে কি-না? অথচ ওই ম্যাচটা বাজেভাবে হেরেছি। আসলে ওসব নিয়ে ভাবার কিছু নেই। ম্যাচ জিততে আমাদের কঠোর পরিশ্রম করে ভালো খেলতে হবে। আশা করি, কাল (আজ) আমরা সব ঠিকমতো করতে পারব।

প্রশ্ন :এই ম্যাচ দিয়ে বাংলাদেশ কি সেমিফাইনালের সমীকরণ মেলাতে চেষ্টা করছে?

মাশরাফি :আপনি ১০ জন অধিনায়ককে জিজ্ঞেস করুন, তারা সবাই সেমিফাইনালে যাওয়ার কথা বলবে। এটাই সত্য। যদিও এটা সহজ নয়। বিশেষ করে এশিয়া থেকে ভারত ছাড়া বাকিদের সেরা খেলাটা খেলেই যেতে হবে। সেমিতে যাওয়ার লক্ষ্য তো আমরা রেখেছি, তবে কাজটা অত সহজ নয়। এখন থেকেই হিসাব-নিকাশ শুরু হয়ে গেছে। আমরা যদি নিউজিল্যান্ড বা ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জিততে পারতাম, তাহলে কাজটা অনেক সহজ থাকত। এ মুহূর্তে খুব কঠিন মনে হচ্ছে, তবে সেমিফাইনালে যাওয়া এখনও সম্ভব। এ জন্য আমাদের জয়ে ফিরতে হবে।

প্রশ্ন :এই ম্যাচে ফেভারিট হিসেবে নামছে বাংলাদেশ। মানুষের প্রত্যাশাও অনেক। অনিবার্য জয়ের এই ম্যাচ নিয়ে খুব বেশি চাপ অনুভব করছেন কি?

মাশরাফি :মানুষ এই ম্যাচ নিয়ে কী ভাবছে, আমার জানা নেই। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের পর আমাদের চিন্তাভাবনা, আত্মবিশ্বাস সবই উঁচুতে ছিল। ভেবেছিলাম, নিউজিল্যান্ডকে হারাতে পারব; কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারিনি। এদিক থেকে প্রতিটি ম্যাচেই চাপ থাকে। শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচেও চাপ থাকবে। তবে আমি মনে করি, ম্যাচ জেতা সম্ভব। চাপ থাকবে, কিন্তু সেটা যে বেশি তা বলব না। এই চাপ মানিয়ে নিয়েই খেলতে হবে এবং জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে হবে। প্রথম বল থেকেই এ লক্ষ্য নিয়ে খেলতে হবে।

প্রশ্ন:জয়ের জন্য কতটা মুখিয়ে আছেন?

মাশরাফি :একাদশে পরিবর্তন আমি একা বললে হবে না। টিম ম্যানেজমেন্ট যারা আছেন, তাদেরও সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আর একাদশ পরিবর্তন সব সময় ভালো কিছু হয় না। যখন প্রয়োজন হয়, তখনই করতে হয়।

প্রশ্ন :বৃষ্টির কারণে শ্রীলংকা-পাকিস্তান ম্যাচটা হয়নি। কালও (আজ) বৃষ্টির পূর্বাভাস আছে। ম্যাচটা না হলে দুশ্চিন্তা বাড়াবে কি?

মাশরাফি :ম্যাচটা না হলে কঠিন সমীকরণে পড়তে হবে। অবশ্যই ম্যাচটা হওয়া খুব প্রয়োজন। আগের দুটোর একটা জিতে থাকলে এত বেশি প্রয়োজন হতো না। সে জন্য আমরা মনেপ্রাণে চাচ্ছি ম্যাচটা যেন হয়।

প্রশ্ন :তামিম ইকবাল প্রথম তিন ম্যাচে রান পাননি। তাকে খুব ক্ষুধার্ত দেখাচ্ছে। রানে ফিরতে তার যে চেষ্টা, ওটা অন্যদের মধ্যে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে কি-না?

মাশরাফি :তামিম গত চার বছরে দলের সেরা ব্যাটসম্যান। গত তিন ম্যাচে ওর সেরাটা পাইনি। আমি নিশ্চিত, এ জন্য ওর বেশি খারাপ লাগছে। ও যদি এভাবে কঠিন পরিশ্রম নাও করত, তাহলেও সে ড্রেসিংরুমের আইডল। আমি নিশ্চিত, ও খুঁজে দেখার চেষ্টা করছে, কীভাবে খেললে বড় স্কোর পাবে।

প্রশ্ন :আগের যে তিনটা ম্যাচ খেলেছেন, প্রতিটি দলের জন্যই এই কন্ডিশন তাদের উপযোগী। কালকের ম্যাচের প্রতিপক্ষ শ্রীলংকা, সেদিক থেকে কন্ডিশন অনুযায়ী সমান সুবিধা পাবেন। এটা কতটা স্বস্তির?

মাশরাফি :বিশ্বকাপে কোনো ম্যাচে স্বস্তির জায়গা নেই। প্রতিটি ম্যাচই আমরা হিসাবের মধ্যে রেখেছি। এশিয়ার দুটি দল যখন খেলছি, তখন দু'দলই ভাবছে এখান থেকে দুটো পয়েন্ট নিতে পারি। সত্যি কথা, ইকুয়ালি জায়গা থেকে এ দুটো দলই আছে। এখন মাঠে যে ভালো খেলবে, তারাই জিতবে।