পাকিস্তানের অস্ট্রেলিয়া চ্যালেঞ্জ

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৯      

স্পোর্টস ডেস্ক

বিশ্বকাপে রান তাড়ায় ভীষণ সফল অস্ট্রেলিয়া। ১৯৯৯ বিশ্বকাপ থেকে রান তাড়া করতে নেমে হারেনি তারা। তবে তাদের সে ধারায় ছেদ পড়ে গত ৯ জুন। ভারতের কাছে ৩৬ রানে হেরে যায় তারা। সে পরাজয়ের ধাক্কা সামলে টনটনে আজ তারা উপমহাদেশের আরেক দল পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলতে নামবে। হটফেভারিট ইংল্যান্ডকে হারিয়ে চমক দেখানো পাকিস্তান পরের ম্যাচে বৃষ্টির কারণে শ্রীলংকার সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি করেছে। তারাও জিততে মরিয়া।

অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে বড় নির্ভরতার জায়গা তাদের বোলিং আক্রমণ। কিন্তু ভারতের বিপক্ষে বোলাররা সামর্থ্যের পুরোটা ঢেলে দিয়েও তেমন কিছু করতে পারেনি। কোহলি-ধাওয়ানরা ঠিকই সাড়ে তিনশ'র ওপরে রান তুলে নেন। তাদের ব্যাটসম্যানরাও সবটুকু দিয়েই চেষ্টা করেছিলেন ভারতের রান পাহাড় তাড়া করার। তিনশ'র ওপরে রান করলেও কখনোই মনে হয়নি যে, তারা জিততে পারে। বরং গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট হারিয়ে ধীরে ধীরে ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছে তারা। তার পরও শেষ দিকে অ্যালেক্স ক্যারির মারমুখী হাফ সেঞ্চুরিতে পরাজয়ের ব্যবধান কমেছে। ভারতের বিপক্ষে ভুলগুলো শুধরে এখন তারা পাকিস্তানের বিপক্ষে জয়ে ফিরতে মরিয়া।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সাম্প্রতিক রেকর্ডের কারণেই কিছুটা হলেও এগিয়ে থাকবে অস্ট্রেলিয়া। ২০০৯ সালে লাহোরে শ্রীলংকা দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর থেকে পাকিস্তানের হোম গ্রাউন্ড হলো আরব আমিরাত। দুই মাস আগে সেই আরব আমিরাতে পাকিস্তানকে ৫-০-তে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বকাপেও দুই দলের লড়াইয়ে বেশ এগিয়ে অসিরা। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে এই দুই দল পাঁচবার মুখোমুখি হয়েছে, যার মধ্যে চারবারই জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। তার পরও স্বস্তিতে থাকার জো নেই। দলটির নাম যে পাকিস্তান। তাদের সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করা ভীষণ কঠিন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ১০৫ রানে বিধ্বস্ত হওয়ার পরের ম্যাচেই ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দিয়ে 'আনপ্রেডিক্টেবল' ট্যাগের সার্থকতা আবার তারা প্রমাণ করেছে।

পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ খানও ঘোষণা দিয়েছেন যে, রেকর্ড নিয়ে তারা মোটেও ভাবছেন না, 'অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আমাদের রেকর্ড ভালো নয়। তাদের বিপক্ষে আমরা খুব বেশি ম্যাচ জিতিনি। ইংল্যান্ডের বিপক্ষেও আমরা কিন্তু খুব বেশি জিতিনি। সেই ইংল্যান্ডকে আমরা হারিয়েছি। ওই জয়টি আমাদের আশাবাদী করে তুলেছে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আমরা যে আগ্রাসী মনোভাব নিয়ে খেলেছিলাম, আগামীকালও (আজ) একই মনোভাব নিয়ে মাঠে নামব।' এর মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার জন্য একটি দুঃসংবাদ হলো তাদের পেস বোলিং অলরাউন্ডার মার্কাস স্টয়নিস চোটের কারণে আজ মাঠে নামতে পারবেন না। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে পিঠের মাংসপেশিতে টান পড়ে তার। বিশ্বকাপ থেকেই ছিটকে যেতে পারেন তিনি। সে কারণেই সময় নষ্ট না করে তার বদলি হিসেবে মিশেল মার্শকে উড়িয়ে আনছে অস্ট্রেলিয়া। 'এ' দলের হয়ে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে মার্শ এখন ইংল্যান্ডেই আছেন।

তবে দুই পক্ষের এত রণপ্রস্তুতি ভেস্তে যেতে পারে বৃষ্টিতে। গত দু'দিনের মতো আজও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে ইংল্যান্ডের অধিকাংশ শহরে। বৃষ্টি না হলে আজ যে দিনের অধিকাংশ সময় টনটনের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকবে সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। দিনের শুরুতে বৃষ্টির সম্ভাবনা প্রবল। তাই ম্যাচের দৈর্ঘ্য কমে আসতে পারে। আর গত দু'দিনের বৃষ্টির কারণে স্বভাবতই উইকেট থেকে পেসাররা সুবিধা পাবেন। তাই টসে জেতা দল শুরুতে ফিল্ডিং করতে মোটেও চিন্তা করবে না।