এবার উইন্ডিজের সামনে প্রোটিয়ারা

ম্যাচ প্রিভিউ

প্রকাশ: ১০ জুন ২০১৯      

স্পোর্টস ডেস্ক

দুঃস্বপ্নের মতো একটা বিশ্বকাপ শুরু করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। হ্যাটট্রিক পরাজয়ে টুর্নামেন্ট থেকে এখনই ছিটকে যাওয়ার অবস্থা তাদের। সেমির সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখতে হলে জয় ছাড়া পথ নেই প্রোটিয়াদের সামনে। সে লক্ষ্যেই আজ মরিয়া হয়ে সাউদাম্পটনে নামবেন ডু প্লেসিস-আমলারা। অবশ্য কাজটা মোটেও সহজ হবে না। প্রতিপক্ষ যে শক্তিধর ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে রীতিমতো তেতে আছে ক্যারিবীয়রা। তাদের বিপক্ষে জিততে হলে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে প্রোটিয়াদের।

এবার দক্ষিণ আফ্রিকার ভাগ্যটাই খারাপ যাচ্ছে। মাঠে দল হিসেবে জ্বলে উঠতে না পারার সঙ্গে চোটেও জেরবার অবস্থা তাদের। চোটের কারণে ছিটকে গেছেন অভিজ্ঞ পেসার ডেল স্টেইন। বাংলাদেশের বিপক্ষে ২১ রানে হারা ম্যাচে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়েছিলেন আরেক পেসার লুঙ্গি এনগিডি। আজ তারও মাঠে নামা অনিশ্চিত। তাই স্টেইনের বদলি হিসেবে দেশ থেকে উড়িয়ে আনা পেসার বেউরান হেনড্রিকসকে মাঠে নামাতে পারে প্রোটিয়ারা। ভারতের বিপক্ষে ৬ উইকেটে হারা ম্যাচে পেসারদের পারফরম্যান্স নিয়ে বেশ নাখোশ প্রোটিয়া টিম ম্যানেজমেন্ট। প্রত্যাশা মেটাতে পারছেন না কাগিসো রাবাদা। ক্রিস মরিস, ফেলুকাওদের অবস্থাও তথৈবচ। তাই আজ পেস আক্রমণে পরিবর্তনের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে জিততে হলে আজ মূল কাজটা করতে হবে প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের। ক্যারিবিয়ানদের আগ্রাসী পেস আক্রমণ সামলানোর চ্যালেঞ্জটা নিতে হবে তাদের। দক্ষিণ আফ্রিকার ওপেনিং জুটিটা জমছে না। এ কারণেই বড় স্কোর আসছে না। উদ্বোধনী ম্যাচে ইংলিশ পেসার জোফরা আর্চারের বাউন্সারে চোট পাওয়ার পর বেশ নড়েবড়ে অবস্থা হাশিম আমলার। ফর্মে নেই অন্য ওপেনার কুইন্টন ডি ককও। আমলার চোটের কারণে দ্বিতীয় ম্যাচে এইডেন মার্করামকে নামানো হয়েছিল। তিনিও ব্যর্থ। চাপ নিতে পারছে না মিডল অর্ডারও। অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস ছাড়া আর কারও ব্যাটেই রান নেই। ডেভিড মিলার, ডুসেনদের ব্যাটে নির্ভরতা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। আজ জিততে হলে তাদের জ্বলে উঠতেই হবে।

ঠিক বিপরীত অবস্থা ওয়েস্ট ইন্ডিজের। ভীষণ স্পিরিটেড মনে হচ্ছে দলটাকে। ট্রেন্ট ব্রিজে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে গত ম্যাচ হেরে গেলেও খেলার লাগাম অধিকাংশ সময় তাদের হাতেই ছিল। ১৫ রানের এ হারের পেছনে অবশ্য অনেকেই আম্পায়ারের দায় দেখছেন। ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার কার্লোস ব্রাথওয়েট তো প্রকাশ্যেই আম্পায়ারিংয়ের সমালোচনা করেছেন। এবারের বিশ্বকাপে ক্যারিবীয়দের নতুন রূপে আবির্ভূত হওয়ার মূল কারণ তাদের পেস আক্রমণ। ৭৫ রানে অস্ট্রেলিয়ার ৫ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন তারা। প্রথম ম্যাচে তো পাকিস্তানকে ১০৫ রানে গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন থমাস-রাসেলরা। তাই বোলিং নিয়ে মোটামুটি নির্ভার তারা। ব্যাটিং নিয়ে অবশ্য খানিকটা চিন্তা রয়েছে। ক্রিস গেইল দাপট দেখালেও অন্য ওপেনার এভিন লুইস এখনও রানের দেখা পাননি। তবে শাই হোপ চমৎকার ফর্মে থাকায় সেটা খুব একটা টের পাওয়া যাচ্ছে না। মিডল অর্ডারে নিকোলাস পুরান, শিমরন হেটমায়ারদের সঙ্গে বিগ হিটার আন্দ্রে রাসেল জ্বলে উঠলে ক্যারিবীয়দের আটকানোর সামর্থ্য খুব কম দলেরই আছে।

সাউদাম্পটনে আজ বিকেলের দিকে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে দিনের অধিকাংশ সময় আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। যে কারণে পেস বোলাররা হয়ে উঠতে পারেন ম্যাচের নিয়ন্ত্রক। এ খবর শুনে হাত নিশপিশ করার কথা ক্যারিবীয়দের।