ধাওয়ান ধামাকা

প্রকাশ: ১০ জুন ২০১৯      

স্পোর্টস ডেস্ক

ধাওয়ান ধামাকা

১২৭ রানের নিখুঁত জুটি। শিখর ধাওয়ান আর রোহিত শর্মার দারুণ এই ব্যাটিং রসায়ন রোববার ওভালে ভারতকে এনে দেয় বড় স্কোরের ভিত- এএফপি

সময়টা খুব একটা ভালো যাচ্ছিল না। শেষ কয়েকটা ম্যাচে ব্যাট হাতে আলো ছড়াতে ব্যর্থ হয়েছেন। তবে কেনিংটন ওভালে ঠিকই দেখা মিলল 'পুরনো' শিখর ধাওয়ানকে। ৯৫ বলে করেছেন সেঞ্চুরি। আর স্কোরবোর্ডে ১১৭ রান করে ফিরে যান প্যাভিলিয়নে। গতকাল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ধাওয়ানের এমন রূপ দেখে নিঃসন্দেহে আত্মবিশ্বাস বাড়বে ভারতীয় কোচ রবি শাস্ত্রীর। কেন নয়! এই মাঠ তো ধাওয়ানের কাছে অনেকটা মধুর মঞ্চ। রোববারের আগে চারবার ব্যাট হাতে নেমেছেন, তার মধ্যে দু'বারই শতক উদযাপন করেন। একবার ফিফটি। এবার বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে সেই ওভালেই রানের ফুল ফোটালেন ধাওয়ান। এ নিয়ে কেবল কেনিংটন ওভালে দাঁড়িয়েই ধাওয়ান ঝুলিতে পুরলেন ৪৪৩ রান। যেটা ৫০ ওভারের ক্রিকেটে এই ভেন্যুর পঞ্চম সর্বাধিক রান। তবে ভারতীয়দের মধ্যে আবার নাম্বার ওয়ান।

দারুণ ফেরা। আগের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ব্যাট হাতে করেন ৮ রান। যদিও সেদিন জয়ের আলোতে ধাওয়ানের নিষ্প্রভ ছায়া কেটে যায় দ্রুত। ফলে সমালোচকদের তীর পাশ কাটিয়ে চলে গেছে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে যদি একই রকম হতো তাহলে হয়তো এ যাত্রায় আলোচনার টেবিলে নাম উঠত ধাওয়ানের। উল্টোটা হওয়ায় তাকে নিয়ে এখন ভারতীয় শিবিরে বেশ স্বস্তি। রোহিত শর্মার সঙ্গে শুরুটা ছিল একেবারে সাবধানী। ধীরে ধীরে বাউন্ডারি হাঁকানো। এরপর চমৎকার একটা জুটি গড়া। সব মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভারতের ৩৫২ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়ার অন্যতম কারিগর এই ধাওয়ান।

হ্যামিলটন টু ওভাল। বিশ্বকাপের এই দুই মঞ্চ শিখরের জন্য সুখকর। গত বিশ্বকাপে মেলবোর্নে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৩৭ রানের ঝকঝকে এক ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। এরপর একই আসরে হ্যামিলটনে আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে তুলে নেন নিজের দ্বিতীয় বিশ্বকাপ সেঞ্চুরি। সেক্ষেত্রে অদ্যাবধি তিনের ঘরে পা রেখেছেন ধাওয়ান। যেটা সর্বোচ্চ শতকের দিক থেকে এখন পর্যন্ত ভারতের জার্সিতে তৃতীয়। ১৯৯২ থেকে ২০১১ পর্যন্ত ছয়টি বিশ্বকাপ খেলা শচীন টেন্ডুলকার এই তালিকায় একে আছেন। ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটারের বিশ্বকাপ সেঞ্চুরির সংখ্যা ছয়টি। দুইয়ে আছেন আরেক লিজেন্ড সৌরভ গাঙ্গুলী। তার নামের পাশে চারটি শতক।

সেঞ্চুরি করে চিরচেনা উদযাপন। দুই হাত প্রসারিত করে সতীর্থদের দিকে মুখ ফিরিয়ে চওড়া হাসি। মুহূর্তেই পুরো ওভালে করতালির মূর্ছনা। উইকেটে থাকা ক্যাপ্টেন বিরাট কোহলিও জানালেন অভিনন্দন। আসলে এমন দিনে ছন্দে ফেরার আনন্দটা একটু অন্যরকম হওয়া স্বাভাবিক।

নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ ছিল ধাওয়ানের। বিশ্বকাপে তার সর্বোচ্চ সংগ্রহ ছিল ১৩৭। সে পথেই ছিলেন গতকাল। কিন্তু অল্পের জন্য টপকাতে পারেননি। পাশাপাশি একদিনের ক্রিকেটে এ বছর মোহালিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে করা ক্যারিয়ারসেরা ১৪৩ রানকে ছাড়িয়ে যেতে পারতেন। অবশ্য ধাওয়ানকে সেই সুযোগ দেননি মিশেল স্টার্ক। ইয়র্কার করতে গিয়ে কিছুটা হাই লেন্থের বল দেন এই অসি পেসার। ধাওয়ানও কিছুটা ফুলটস বানিয়ে ব্যাট চালান সজোরে। ব্যাটে-বলের সংযোগটা হলো না। তাতে ডিপ মিড উইকেটের ওপর বদলি হয়ে নামা নাথান লায়নের হাতে ক্যাচবন্দি হলেন ধাওয়ান।