স্মরণীয় একটি বিশ্বকাপ শেষ করেছেন সাকিব আল হাসান। ব্যাট হাতে তিনি ছিলেন অনন্য। আট ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি ও পাঁচ হাফ সেঞ্চুরিতে ৬০৬ রান নিয়ে রোহিত শর্মা ও ডেভিড ওয়ার্নারের পরে আছেন তিনি। এমন পারফরম্যান্সের প্রভাব ভালোমতোই পড়েছে র‌্যাংকিংয়ে। ব্যাটসম্যানদের তালিকায় ১০ ধাপ এগিয়ে ২২ নম্বরে অবস্থান নিয়েছেন সাকিব। ব্যাটিংয়ে ক্যারিয়ারসেরা ৬৯২ পয়েন্ট অর্জন করেছেন তিনি। পাশাপাশি বোলিংয়ে বিশ্বকাপে নিয়েছেন ১১ উইকেট। ব্যাটে-বলে এমন পারফরম্যান্সের পর অলরাউন্ডারদের তালিকায় তার শীর্ষস্থানটা আরও পোক্ত হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা বেন স্টোকসের সঙ্গে তার পয়েন্টের ব্যবধান ৯০! অলরাউন্ডার ক্যাটাগরিতে সাকিবের পয়েন্ট ৪০৬। তবে টিম র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ সপ্তম স্থান ধরে রাখলেও ২ পয়েন্ট কমেছে।

ব্যাটসম্যানদের র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশিদের মধ্যে সবার ওপরে আছেন মুশফিকুর রহিম। ৭০৪ চার পয়েন্ট নিয়ে এক ধাপ এগিয়ে ১৯তম স্থানে আছেন তিনি। বিশ্বকাপে আট ম্যাচে একটি সেঞ্চুরি ও দুটি হাফ সেঞ্চুরিতে ৩৬৭ রান করেছেন মুশফিক। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আছেন ৪৫তম স্থানে। শীর্ষ পঞ্চাশে বাংলাদেশের আর কেউ নেই। পাঁচটি হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ব্যাটিং তালিকায় শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তবে দ্বিতীয় স্থানে তার সতীর্থ রোহিত শর্মা বিশ্বকাপে পাঁচ সেঞ্চুরি করে পয়েন্টের ব্যবধান কমিয়ে নিয়ে এসেছেন। বিশ্বকাপে ভালো ব্যাটিং করায় চার ধাপ এগিয়ে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছেন পাকিস্তানের বাবর আজম। চারে উঠে এসেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ফাফ ডু প্লেসিস। এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরা ডেভিড ওয়ার্নার ষষ্ঠ স্থান দখল করেছেন।

বোলিংয়েও শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন ভারতের জাসপ্রিত বুমরাহ। দ্বিতীয় স্থানে আছেন নিউজিল্যান্ডের ট্রেন্ট বোল্ট। বোলারদের তালিকায় বাংলাদেশের মেহেদী হাসান ছয় ধাপ এগিয়ে ১৬তম স্থানে আছেন। বিশ্বকাপে উইকেটশিকারের দৌড়ে শীর্ষে থাকা মিচেল স্টার্ক ১৫ ধাপ এগিয়ে সপ্তম স্থানে উঠে এসেছেন। পাকিস্তানের মোহাম্মদ আমির ২৮ ধাপ এগিয়ে ১২ নম্বরে আছেন।

মন্তব্য করুন