রোহিত বনাম কিউই পেসার

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৯      

সঞ্জয় সাহা পিয়াল, ম্যানচেস্টার থেকে



তিনি এলেনই না, প্রেসবক্সের ভারতীয় সাংবাদিকরা খোঁজ নিয়ে জানালেন, স্ত্রীর সঙ্গে শপিংয়ে বেরিয়েছেন! চব্বিশ ঘণ্টা পর সেমিফাইনাল ম্যাচ। তার আগে দলের কেউ মাঠে না এসে শপিংয়ে? সময় খারাপ গেলে রোহিত শর্মাকে নিয়ে একচোট হয়ে যেত; কিন্তু এখন তো সত্যিই বিশ্বকাপের 'হানিমুন' পিরিয়ড চলছে রোহিতের। তাই তার এই শপিংয়ে যাওয়াটাকেই 'রিলাক্স' থাকার দরকার আছে- জাতীয় রিপোর্ট লিখছেন তারা। শুধু রোহিত নন, জাসপ্রিত বুমরাহ আর ভুবেনশ্বর কুমারও এলেন না মাঠে। শুধু মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলতে হবে দেখে কোহলি ঘুরে গেলেন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে। বলে গেলেন- 'রোহিত পাঁচটি সেঞ্চুরি করেছে। আমি ওর সঙ্গে কথা বলেছি, সে বলেছে, ব্যক্তিগত অর্জন নিয়ে খুব একটা উচ্ছ্বসিত নয় সে; বরং দলের সাফল্যই তাকে আনন্দ দিচ্ছে বেশি। এটা আমাদের ড্রেসিংরুমেরই বার্তা। আমরা এখানে এসেছি বড় লক্ষ্য নিয়ে। সেখানে আর দুটো ম্যাচ দূরে রয়েছি। আমি চাই রোহিতের কাছ থেকে আরও দুটি সেঞ্চুরি পেতে।'

কোহলির যেমন রোহিতকে নিয়ে গর্বের শেষ নেই, তেমনি কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনেরও আত্মবিশ্বাস তার পেস অ্যাটাক নিয়ে। দলের তিন পেসার নিয়েই আজ রোহিতকে আটকানোর ছক এঁকেছে কিউইরা। বিশ্বকাপের তিনটি সেঞ্চুরি রোহিত করেছেন শুরুতে 'জীবন' পেয়ে। অর্থাৎ শুরুর দিকে একটা সুযোগ দিয়ে থাকেন ভারতীয় এই ওপেনার। সেটাকেই কাজে লাগাতে চাইছে কিউইরা। বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি ম্যাচেও কিন্তু এই রোহিতকেই অল্প রানে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ট্রেন্ট বোল্ট। তা ছাড়া নিউজিল্যান্ড দলের তিন পেসার বোল্ট, ফার্গুসন আর ম্যাট হেনরির আইপিএল খেলার অভিজ্ঞতা আছে। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের দুর্বলতাগুলোও তাদের জানা আছে। কিন্তু বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি কিউই পেসাররা। আজ কি পারবেন তারা? আজ তো খেলা হবে নতুন পিচে, ফ্রেশ উইকেটে- এখানে কি কাটারগুলো, সুইংগুলো ঠিকঠাক হবে? জানতে চাওয়া হয়েছিল কেন উইলিয়ামসনের কাছে। 'বিশ্বকাপের শুরুর দিকে শুধু প্রতিপক্ষই নয়, কন্ডিশনের সঙ্গেও আমাদের লড়াই করতে হয়েছিল। প্রচণ্ড ঠাণ্ডা ছিল সে সময়। এখন কিন্তু সামার শুরু হয়েছে। আশা করছি বোলাররা তাদের চেনা ছন্দে ফিরে আসবে। আমরা জানি, ভারতীয় ব্যাটিং অর্ডারের গভীরতা, এটাও জানি, আমাদের পেসাররা নিজেদের দিনে কী করতে পারে। সুতরাং জমজমটা একটা ম্যাচই দেখতে পাবে দর্শকরা।'

এবারের আসরে রোহিত শর্মা এতটাই ভালো খেলছেন যে, দলের বাকি ব্যাটসম্যানদের স্বাভাবিক খেলা থেকে কিছুটা সরে আসতে হয়েছে। কোহলি নিজেই তার খেলার স্টাইল থেকে নাকি সরে এসেছেন। 'এই বিশ্বকাপে আমাকে ভিন্ন ধরনের ভূমিকা পালন করতে হয়েছে। কারণ রোহিত শুরুতে এতটা ভালো খেলছে যে, আমাকে এসে সেটা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জ নিতে হচ্ছে। তা ছাড়া রোহিতের কারণেই ইনিংসের অর্ধেক সময় পর হার্দিক পান্ডিয়া, কেদার যাদব আর মহেন্দ্র সিং ধোনিকেও কখনও ১৫০, ১৬০ বা ২০০ স্ট্রাইক রেটে ব্যাটিং করতে হচ্ছে।' ভারতের ব্যাটিং অর্ডারের ভূমিকাই যেন পাল্টে দিচ্ছেন রোহিত শর্মা।

অথচ এই রোহিত শর্মাকেই ২০১১ বিশ্বকাপে উপেক্ষা করা হয়েছিল। প্রেসবক্সের ভারতীয় সাংবাদিকরা বলছিলেন রোহিতকে নিয়ে। তার পর থেকে নাকি যুবরাজ সিংয়ের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়িয়ে দেন রোহিত। তার কাছ থেকেই টিপস নিতে থাকেন। লিডসে কোহলি নিজেই মজা করে সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন রোহিত শর্মার। ভারতীয় বোর্ড আবার সেই ভিডিওটা ভাইরাল করে দেয়। সেখানেই দেখা যায়, একটি জায়গায় কোহলি রোহিতকে জিজ্ঞাসা করছেন- ২০১১ বিশ্বকাপে তুমি খুব করে চেয়েছিলে ঘরের মাটিতে বিশ্বকাপ হাতে তুলতে। সেই সুযোগ তুমি পাওনি। গত বিশ্বকাপেও আমরা সেই সুযোগ হারিয়েছি, এবার কী মনে হচ্ছে? উত্তরে রোহিত শর্মা- 'তোমার মতো, টিমের সবার মতো, গোটা টিমের মতো আমিও স্বপ্ন দেখছি, এদেশ থেকে বিশ্বকাপটা নিজের দেশে নিয়ে যাওয়ার। আশা করি, আরও দুটো বড় ইনিংস তোমাকে দিতে পারব। আমরা বিশ্বকাপ জিতেই বাড়ি ফিরতে পারব।' রোহিত শর্মারা যখন ম্যানচেস্টার থেকেই লর্ডসে চোখ রেখেছেন তেমনি নিউজিল্যান্ড কিন্তু ছেড়ে কথা বলবে না। অকল্যান্ড থেকে আসা নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের এক সাংবাদিক মনে করিয়ে দিলেন- গত বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলা দল কিন্তু নিউজিল্যান্ড!