ইয়ংয়ে ভাঙল মোহনবাগান

প্রকাশ: ২১ অক্টোবর ২০১৯      

সিয়াম আনোয়ার, চট্টগ্রাম থেকে

ইয়ংয়ে ভাঙল মোহনবাগান

ইয়ং এলিফ্যান্টসের চানথোচোন থিনোলাথের বাড়ানো বলে ৪৩ মিনিটে সমতাসূচক গোল করেন সোমক্ষি কিওহানাম। আগুয়ান মোহানবাগান গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে বল ভাসিয়ে দেন পোস্টে- মো. রাশেদ

ফুটবল জগতে মোহনবাগানের বয়স ১৩০ বছর, ইয়ং এলিফ্যান্টসের মাত্র চার। পশ্চিমবঙ্গের শতবর্ষী ক্লাবটি কেবল এ বছরই ডুরান্ড কাপে রানার্সআপ আর কলকাতা লিগে দ্বিতীয় হয়েছে। বিপরীতে ইয়ংয়ের সেরা সাফল্য এ বছর লাওসের প্রথম বিভাগে দ্বিতীয় হওয়া। পাঁচ বিদেশি অনুমোদনের ম্যাচে মোহনবাগানের পাঁচজনই স্প্যানিশ; কিন্তু ইয়ংয়ে বিদেশি নেই একজনও। ঐতিহ্যে, সাফল্যে আর শক্তিমত্তায় এত এত ফারাক থাকলেও মাঠের খেলায় তার ছাপই পড়ল না। উল্টো ২-১ ব্যবধানে হেরেই গেল মোহনবাগান অ্যাথলেটিক ক্লাব। নাটকীয় সমাপ্তির ম্যাচটি ১-১ সমতায় শেষ হতে চলা যখন সাধারণ দৃশ্য মনে হচ্ছিল, তখন ৮৭তম মিনিটে পেনাল্টি শুটে গোলের সুযোগ মিস করে মোহনবাগান, পাল্টা আক্রমণে দারুণ এক ক্রস থেকে গোল পেয়ে যায় ইয়ং।

ইয়ং এলিফ্যান্টসের পারফরম্যান্স চমকপ্রদ মনে হওয়ার অন্যতম কারণ দলটির প্রাথমিক নির্লিপ্ত প্রতিক্রিয়াও। টুর্নামেন্ট শুরুর আগের দিন উপস্থিত সব দলের কোচ-ম্যানেজাররাই লক্ষ্য হিসেবে শুনিয়েছিলেন ট্রফি জয়ের কথা। একমাত্র ইয়ং এলিফ্যান্টসই বলেছিল স্রেফ ভালো খেলতে চাই। কোনো বিদেশি না থাকা, আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে অভিজ্ঞতা না থাকার কথা উল্লেখ করে আগেভাগেই ব্যাকফুটে ভঙ্গিমা দেখিয়েছিলেন কর্তারা। গতকাল এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরুর দিকেও ছিল তারই মঞ্চায়ন। বল দখলে রেখে আক্রমণাত্মক খেলছিল মোহনবাগান, আর প্রতিবারই বল বিপদমুক্ত করার কাজ করতে হচ্ছিল ইয়ং রক্ষণকে। প্রথম আট মিনিটের মধ্যেই কর্নার, ডি বক্সে ক্রস আর একটু বাইরে থেকে ফ্রি কিক সামাল দিতে হয় তাদের। অনূর্ধ্ব-২৩ বছর বয়সী খেলোয়াড়ে গড়া ইয়ং এলিফ্যান্টস প্রথম আক্রমণে যায় ১৫ মিনিটের সময়। তবে বোপাচান বোকংয়ের শট অল্পের জন্য পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে গেলে তাদের হতাশ হতে হয়। হতাশা আরও বাড়ে দুই মিনিট পর। জোসেবা কোর্তার কর্নার থেকে হেডে ইয়ংয়ের জালে বল জড়িয়ে দেন মোহনবাগানের জুলেন কলিনাস ওলাইজোলা। এর পরই ধীরে ধীরে গুছিয়ে উঠতে শুরু করে ইয়ং। এমএ আজিজের গ্যালারিতে হাজির হওয়া হাজার চারেক দর্শকও ছিল তাদেরই সমর্থক। বিচ্ছিন্ন আক্রমণের ধারায় ৪৩তম মিনিটে সমতাসূচক গোল পেয়ে যায় ইয়ং। চানথোচোন থিনোলাথের বাড়ানো বল নাগালে পেয়ে এগিয়ে আসা মোহনবাগান গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে ভাসিয়ে দেন সোমক্ষি কিওহানাম। গোলে উজ্জীবিত ইয়ং এলিফ্যান্টস বিরতির আগের শেষ দুই মিনিটে আরও তিনবার বল নিয়ে মোহনবাগানের ডি বক্সে ঢোকে। তবে সাফল্য আসেনি কোনোটিতে। দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণের ধার আরও বাড়ে। তবে আক্রমণ বাড়লেও গোল হচ্ছিল না ফিনিশিংয়ে আটকে যাওয়ার কারণে। উল্টো ৮৭ মিনিটের মাথায় গোল হজম করতে বসেছিল ইয়ং। ডি বক্সের মধ্যে ফাউল করে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ডিফেন্ডার ভান্না বোনলোভানসা। তবে পেনাল্টির সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি মোহনবাগানের আগুইরোগোমেজ কোর্তা। তার নেওয়া শট বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে রুখে দেন ইয়ং গোলরক্ষক জয়সাভাথ। পাল্টা আক্রমণেই তিনোলাথের দারুণ ক্রস থেকে বল জালে জড়িয়ে ইয়ংকে উৎসবের উপলক্ষ এনে দেন প্রথম গোলের নায়ক কেওহানাম। শেখ কামাল ক্লাব কাপে আজ কোনো খেলা নেই। ভারতের গোকুলাম কেরালা ও চেন্নাই এফসি আসতে দেরি হওয়ায় নতুন সূচি দেওয়া হয়েছে। এখন দুটি সেমিফাইনাল হবে একই দিনে, ২৮ অক্টোবর। ফাইনাল ৩০ অক্টোবরেই।