লিগ পর্বে এক প্লে-অফে টানা সুপার ওভার

প্রকাশ: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৯      

ক্রীড়া প্রতিবেদক

লিগ পর্বে এক প্লে-অফে টানা সুপার ওভার

ক'দিন পর শুরু বঙ্গবন্ধু বিপিএল। তার আগে নিজেকে একটু ঝালিয়ে নিচ্ছেন মুশফিকুর রহিম - বিসিবি

বিশ্বকাপের ফাইনালের শিক্ষা থেকে নকআউট ম্যাচ শেষ করার ধারাবাহিক সুপার ওভারের নিয়ম চালু করেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। ক্রিকেট খেলুড়ে দেশগুলোও ঘরোয়া ক্রিকেটে আইসিসির প্লেয়িং কন্ডিশনের এই নতুন নিয়ম করেছে বা করবে। বাংলাদেশের ক্রিকেটে নিয়মটি চালু হচ্ছে বিপিএল টি২০ টুর্নামেন্ট থেকে। তবে লিগ রাউন্ড ও প্লে-অফে সুপার ওভারের নিয়মে কিছুটা ভিন্নতা থাকবে। রাউন্ড রবিন লিগের খেলায় একটি করে সুপার ওভার রাখা হয়েছে ম্যাচ নিষ্পত্তি করতে। প্লে-অফে ম্যাচের ফল পেতে টানা সুপার ওভার হবে।

লিগ রাউন্ডে একটা সুপার ওভার রাখার কারণ সম্পর্কে আম্পায়ার্স বিভাগের ভারপ্রাপ্ত ম্যানেজার অভি আব্দুল্লাহ নোমান জানান, লিগ রাউন্ডে পয়েন্ট ভাগাভাগির সুযোগ আছে। একবার সুপার ওভার শেষে ম্যাচের ফল না পেলে পয়েন্ট ভাগাভাগি হবে। আর প্লে-অফে যেহেতু ম্যাচের ফল হওয়া বাধ্যতামূলক, তাই আইসিসির নিয়মে টানা সুপার খেলা হবে ম্যাচের ফল হওয়া পর্যন্ত। স্লো ওভার রেটের ক্ষেত্রেও আইসিসির নতুন নিয়ম অনুসরণ করা হবে। অধিনায়ককে শুধু জরিমানা দিলেই হবে। আগে নিয়ম ছিল, পর পর দুই ম্যাচে স্লো ওভার রেটের ফাঁদে পড়লে পরের ম্যাচে নিষিদ্ধ হতেন অধিনায়ক।

এ ছাড়াও টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই থাকছেন দু'জন বিদেশি আম্পায়ার ইংল্যান্ডের অ্যালেক্স হোয়ার্ফ ও শ্রীলংকার প্রগিথ রানবুকওয়ালা। এ দু'জনই আইসিসির প্যানেল আম্পায়ার। বিপিএলের শুরু থেকেই দু'জনকে ম্যাচ পরিচালনা করতে দেখা যাবে। দুই বিদেশি আম্পায়ার ঢাকায় আসবেন ৯ ডিসেম্বর। খেলা শুরু হবে ১১ ডিসেম্বর থেকে। জমজমাট বিপিএল উপহার দিতে প্রথম থেকেই প্রযুক্তি ব্যবহার করবে বিসিবি। ডিআরএসের পুরো সেটআপ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিবি। আল্ট্রাএজ ও হকআই প্রযুক্তি রাখা হবে টিভি আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য। এবার খেলার প্রডাকশনের মান গতবারের চেয়েও ভালো হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী বিসিবি সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী। তিনি বলেন, 'বিপিএলে আন্তর্জাতিক মান ধরে রাখতে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। প্রযুক্তি থেকে শুরু করে মাঠের খেলা সবকিছু ভালো হবে আশা করি।'