লিভারপুলের তিক্ত অভিজ্ঞতা

প্রকাশ: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক

২০১৯ সালের ১ জুন। মাদ্রিদের ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানো স্টেডিয়ামে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে টটেনহাম হটস্পারকে ০-২ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতেছিল লিভারপুল। সুখকর স্মৃতি নিয়ে মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় একই স্টেডিয়ামে খেলতে নামে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। ৯ মাস আগে যে মাঠে ট্রফি নিয়ে উদযাপন করেছিলেন মোহামেদ সালাহরা, সেই মঞ্চেই এবার তিক্ত অভিজ্ঞতা হলো ইংলিশ জায়ান্টদের। চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের কাছে ১-০ গোলে হেরে গেছে লিভারপুল। স্বাগতিকদের হয়ে ম্যাচের ৪ মিনিটে একমাত্র গোলটি করেন সল নিগুয়েজ। ১১ মার্চ অ্যানফিল্ডে ফিরতি লেগে প্রত্যাবর্তনের নতুন গল্প লিখতে হলে ২-০ গোলে জিততে হবে তাদের।

প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে গত মৌসুমে শিরোপা জিতেছিল লিভারপুল। বার্সেলোনার মাঠে ৩-০ গোলে হারা দলটি অ্যানফিল্ডে ৪-০ গোলে জিতেছিল। সেই স্বপ্ন এবারও দেখছেন ক্লপ। এবার অবশ্য সমীকরণটা জটিল নয়। ক্লপের বড় শক্তি হলো দর্শক। যে সমর্থকদের কারণে অ্যাথলেটিকো এদিন হেসেছে জয়ের হাসি। ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানো স্টেডিয়ামে অ্যাথলেটিকো সমর্থকদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। গ্যালারির পুরো অংশটাই ভরে ছিল। ম্যাচজুড়ে প্রিয় দলকে সমর্থন দিয়ে গেছেন দর্শকরা; যা নজর এড়ায়নি ক্লপের। অ্যাথলেটিকোর কোচ ডিয়েগো সিমিওনেও একটু পর পর হাত নেড়ে সমর্থকদের উজ্জীবিত করেছেন। ওয়ান্ডায় যে অবস্থা হয়েছে অ্যানফিল্ডেও একই রকম পরিস্থিতি হবে বলে হুমকি দিয়েছেন লিভারপুল কোচ ক্লপ, 'ম্যাচের ফল ১-০, আমরা ৫-০-তে হারিনি। আমরা মনে করি না যে আমাদের মাঠে এটা সহজ হবে। যেসব অ্যাথলেটিকো দর্শক পরের লেগের ম্যাচের টিকিট পাবেন... অ্যানফিল্ডে তাদের স্বাগতম। সমর্থকদের আবেগ গুরুত্বপূর্ণ। আজ (মঙ্গলবার) রাতে তারা পুরো অ্যাথলেটিকোর পাশে ছিল। এবার আমি দ্বিতীয় লেগের অপেক্ষায় আছি। সবে প্রথম অর্ধের খেলা হয়েছে, আমরা ১-০-তে পিছিয়ে আছি। দ্বিতীয়ার্ধে খেলা হবে আমাদের মাঠে এবং তারা এর ঝাঁজ টের পাবে।'