মেসির রেকর্ড মঞ্চে বার্সার 'ঈগল' শিকার

প্রকাশ: ২২ অক্টোবর ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক

একটা সময় ফেরেনৎসভারোস ছিল বেশ জনপ্রিয়, ঘরভরা ট্রফি, গ্যালারি মাতানো দর্শক আর প্রতিপক্ষকে হারিয়ে দেওয়া উৎসব। কিন্তু নিমেষেই সে সব যায় হারিয়ে। তাতে নতুনরূপে পথচলা হাঙ্গেরির এ ক্লাবটি খুঁজছিল ঘুরে দাঁড়ানোর পথ। ২৫ বছর পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে এসে যাত্রাতেই ভাঙল আশার ডালা। সবুজ ঈগল নামে পরিচিত ফেরেনৎসভারোসকে রীতিমতো শিকারই করে নিল বার্সেলোনা। ঘরের মাঠে তাদের ৫-১ গোলে উড়িয়ে শুরু করল নতুন মিশন।

ষ এক গোলে চার অর্জন

রাতটা ছিল মেসিময়। এক গোল করলেও রেকর্ড হয় চারটি। এই মুহূর্তে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি পেনাল্টি থেকে গোলকরাদের তালিকায় মেসি দুইয়ে। একে থাকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো করেছেন ১৭ গোল। যেখানে মেসির নামের পাশে ১৩ পেনাল্টি গোল। এছাড়া মেসিই প্রথম যে কিনা টানা ১৬টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ মৌসুমে গোল করলেন। যেখানে সাবেক ম্যানইউ তারকা রায়ান গিগসও আছেন। টানা ১৬ মৌসুম গোল করেন গিগস। এ গোলটা ছিল বার্সার দলনেতা হিসেবে মেসির ২৮তম চ্যাম্পিয়ন্স লিগ গোল। যেখানে নেই অন্য কোনো ক্লাবের অধিনায়ক। এই ম্যাচ দিয়ে তিনি ছাড়িয়ে যান সাবেক রিয়াল ক্যাপ্টেন রাউলকে। তিনে থাকা নামটি দেল পিয়েরোর। এখানেই শেষ নয়, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ৩৮টি ভিন্ন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে গোল করার রেকর্ড গড়েন মেসি। যেখানে দুইয়ে থাকা রোনালদো ও রাউল করেছেন ৩৩ দলের বিপক্ষে গোল।

ষ ল্যাম্পার্ডের তিক্ততা

গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে পয়েন্ট খোয়ানোর পাশাপাশি চেলসি কোচ ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের জন্য ছিল বড়ই তিক্ততার। কেননা চেলসির কোচ হয়ে ইংল্যান্ডে আসার পর এটাই কোনো ম্যাচ যেখানে গোলশূন্য ড্র দেখতে হলো। সবমিলে দলটির হয়ে ৬২ ম্যাচে ডাগ আউটে ছিলেন ল্যাম্পার্ড। এই ম্যাচের আগে কোনো দিনই গোলশূন্য ড্র দেখতে হয়নি তাকে।

ষ ১৬ বছর পর এমন পিএসজি

গতবার তারাই খেলেছিল ফাইনাল, এবার শুরুতেই হার। দিনটা পিএসজিভক্তদের জন্য খুবই হতাশার। কেননা গ্রুপ পর্বে নিজেদের মাঠে ১৬ বছর আগে মস্কোর কাছে ৩-১ গোলে হেরেছিল তারা। বিপরীতটা হয়েছে ম্যানইউর। নিজেদের ক্লাব ইতিহাসে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এই প্রথম ১০টি অ্যাওয়ে ম্যাচে জিতল তারা। এর আগে ওলে গানার সোলসায়েরের অধীনে প্রথম ৯টি অ্যাওয়ে ম্যাচই জিতেছিল রেড ডেভিলসরা। আরেক ম্যাচে ডায়নামো কিয়েভের বিপক্ষে রোনালদোহীন জুভেন্তাসকে জেতাতে জোড়া গোল উপহার দেন মোরাতা।