অ্যাতলেটিকোর সামনে অস্থির চেলসি

প্রকাশ: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

স্পোর্টস ডেস্ক

রোমান আব্রামোভিচের মালিকানায় চেলসি যেমন সাফল্য পেয়েছে, ঠিক তেমনি অস্থির এক ক্লাবেও পরিণত হয়েছে। এখানে ক'ম্যাচ হারলেই বিদায় করে দেওয়া হয় কোচকে। আনা হয় নতুন কোচ। ধৈর্য বলতে কোনো শব্দ রুশ এই বিলিওনিয়রের অভিধানে নেই। চেলসি কোচের মিউজিক্যাল চেয়ারে এখন টমাস টুখেল। ঠিক বিপরীত অবস্থা অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের। প্রায় এক দশক ধরে স্প্যানিশ এ ক্লাবটির দায়িত্ব সামলাচ্ছেন দিয়েগো সিমিওনে। বিপরীত মেরুর দুই ক্লাব আজ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে মুখোমুখি হচ্ছে। আজ নকআউট মিশন শুরু করছে শিরোপাধারী বায়ার্ন মিউনিখও। জার্মান জায়ান্টদের মুখোমুখি ইতালির ল্যাজিও। ১৮ মাসের চুক্তিতে চেলসির দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম সংবাদ সম্মেলনে টুখেলকে চেলসির ঘনঘন কোচ পরিবর্তনের সংস্কৃতি নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জবাব দিয়েছিলেন, 'এটা কি পরিবর্তন হয়?' হোসে মরিনহো, কার্লো অ্যানচেলত্তি, অ্যান্টিনিও কন্তে লিগ শিরোপা এনে দেওয়ার পরও স্টামফোর্ড ব্রিজে থাকতে পারেননি।

আর ক্লাব লিজেন্ড ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ডকে তো গত মাসে মৌসুমের মাঝপথে বিদায় করে দেওয়া হলো। টুখেল কি পারবেন চুক্তির মেয়াদ পূরণ করতে? লিগে তিনি ভালো শুরু করলেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট থেকে ছিটকে গেলে তার ওপর নাখোশ হয়ে যাবে মালিকপক্ষ। তাই বেশ চ্যালেঞ্জ নিয়েই নামছেন টুখেল। তবে তিনি দায়িত্ব নেওয়ার পর চেলসির আক্রমণভাগের ধার বেড়েছে। রক্ষণেও আস্থা ফেরাচ্ছে। সিমিওনে অ্যাতলেটিকোর দায়িত্বে আছেন ২০১১ সাল থেকে। এরপর চেলসিতে ১১ জন ম্যানেজার বদল হলেও সিমিওনে ঠিকই বহাল আছেন সেখানে। তার নেতৃত্বে অ্যাতলেটিকো ধীরে ইউরোপে সেরাদের কাতারে উঠে এসেছে। এবার তারা দারুণ ছন্দে রয়েছে। রিয়াল-বার্সাকে টেক্কা দিয়ে লা লিগায় পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে সিমিওনির দল। ইতিহাসও অ্যাতলেটিকোর পক্ষে। ২০১৩-১৪ মৌসুমে সেমিতে চেলসিকে বিদায় করে ফাইনালে উঠেছিল স্প্যানিশ ক্লাবটি। এর পর থেকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্বে কোনো ম্যাচ জিততে পারেনি চেলসি। এবার কি ব্লুজরা পারবে সে ব্যর্থতার বৃত্ত ভাঙতে!