দ্বিতীয় ভারতীয় পেসার হিসেবে শততম টেস্ট খেলতে নামলেন ইশান্ত শর্মা, বল হাতে নিয়ে ভারতকে প্রথম উইকেটটিও এনে দিলেন তিনিই- ব্যস, পেস আর পেসারদের গল্প এটুকুই। সংস্কারের পর নবরূপ পাওয়া নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামের প্রথম ম্যাচের প্রথম ইনিংসের বাকি গল্পটাই স্পিনারদের; বিশেষ করে অক্ষর প্যাটেলের। বাঁহাতি এই স্পিনারের ঘূর্ণিতে ক্ষতবিক্ষত হয়েছে ইংল্যান্ডের ব্যাটিং লাইনআপ; সঙ্গে ছিল রবিচন্দ্র অশ্বিনের ভেলকিও। আহমেদাবাদে সিরিজের তৃতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে তাই ১১২ রানেই গুটিয়ে গেছেন জো রুটরা। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নামা অক্ষর ৩৮ রানে নেন ছয় উইকেট, ২৬ রানে তিন উইকেট অশ্বিনের। দিবারাত্রির ম্যাচটিতে অতিথিদের দ্রুতই অল আউট করে দেয় ভারত। পরে ব্যাটিংয়ে নেমে প্রথম দিন শেষে তিন উইকেট হারিয়ে ৯৯ রান তুলেছে বিরাট কোহলির দল। ওপেনিংয়ে নামা রোহিত ৫২ ও অধিনায়ক কোহলি ২৭ রানে অপরাজিত আছেন।

টস জিতে ব্যাট করতে নামা ইংল্যান্ডের শুরুটা একেবারে খারাপ ছিল না। ২৭ রানের মধ্যে ডন সিবলি আর জনি বেয়ারস্টোকে হারিয়ে ফেললেও তৃতীয় উইকেটে দারুণ ব্যাটিং করেছেন জ্যাক ক্রাউলি ও জো রুট। এর মধ্যে ক্যারিয়ারের চতুর্থ ফিফটিও ছুঁয়ে ফেলেন ওপেনার ক্রাউলি। দলীয় ৭৪ রানের মাথায় অশ্বিনের বলে রুট এলবি হওয়ার মাধ্যমে শুরু চূড়ান্ত বিপর্যয়ের। অক্ষর-অশ্বিনের দ্বিমুখী আক্রমণে টপাটপ আউট হতে থাকেন ক্রাউলি, বেন স্টোকস, অলি পোপরাও। ৩৮ রানের মধ্যে আট উইকেট হারিয়ে ১১২ রানে শেষ হয়ে যায় ইংল্যান্ডের ইনিংস। ক্রাউলির ৫৩'র পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৭ রুটের। ইংল্যান্ডের পর ব্যাটিংয়ে নেমে ১৪ ওভার পর্যন্ত নিজেদের টিকিয়ে রাখেন রোহিত শর্মা ও শুভমান গিল। তবে পরপর দুই ওভারে গিল ও চেতেশ্বর পুজারাকে হারিয়ে ধাক্কা খায় ভারতও। গিল ফেরেন জোফরা আর্চারের বলে ক্যাচ দিয়ে, আর লিচের বলে এলবি হন পুজারা।

মন্তব্য করুন