আবারও জাদু দেখালেন রবসন দ্য সিলভা ও রাউল অস্কার বেসেরা। কুমিল্লায় ব্রাজিল-আর্জেন্টাইন ছন্দে বসুন্ধরা কিংসও পেয়েছে দাপুটে জয়। কঠিন প্রতিপক্ষ শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র পরীক্ষায় পাস করেছে অস্কার ব্রজোনের দল। শুধু পাসই করেনি, রাসেলকে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়েছে তারা। গতকাল প্রিমিয়ার লিগে অনুষ্ঠিত ম্যাচে বসুন্ধরা কিংস ৪-০ গোলে শেখ রাসেলকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান আরও মজবুত করেছে। ১১ ম্যাচে ১০ জয় ও এক ড্রয়ে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে কিংস। ১০ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ঢাকা আবাহনী লিমিটেড। ১০ ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে শেখ রাসেল। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে উত্তর বারিধারার বিপক্ষে পিছিয়ে পড়েও ২-১ গোলে জিতেছে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব।

কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়ামে ম্যাচের ২৩ মিনিটে এগিয়ে যায় বসুন্ধরা। ব্রাজিলিয়ান রবসনের বাড়ানো বল ধরে গোল করেন আর্জেন্টাইন বেসেরা। ৪২ মিনিটে তৌহিদুল আলম সবুজের পাস থেকে কিংসের দ্বিতীয় গোলটি করেন রবসন। ৭৪ মিনিটে খালেদ শাফিইয়ের কাছ থেকে বল পেয়ে নিজের দ্বিতীয় এবং দলের তৃতীয় গোলটি করেন বেসেরা। লিগে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডেও এটি দশম গোল। আর ৮৩ মিনিটে বেসেরার তৈরি করা সুযোগ কাজে লাগিয়ে গোল করেন রবসন। তাতে এককভাবে লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় ওঠে গেছেন এ ব্রাজিলিয়ান। ১২ গোল রবসনের। দ্বিতীয় স্থানে থাকা শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের ওমর জোবের গোল ১১টি।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। কিন্তু ম্যাচের ২১ মিনিটে এগিয়ে যায় উত্তর বারিধারা। সাইফের বক্সের ডান প্রান্ত থেকে বারিধারার উজবেক মিডফিল্ডার ইভজেনি কোচনেভ বল বাড়িয়ে দেন সতীর্থ মিডফিল্ডার আরিফ হোসেনের উদ্দেশে। তার নেওয়া ক্রস সবাইকে বোকা বানিয়ে বাঁক খেয়ে চলে যায় জালে। তবে ৪৪ মিনিটে সমতায় ফেরে সাইফ। মাঝমাঠ থেকে ডিফেন্ডার ইয়াসিন আরাফাত যে গড়ানো লম্বা থ্রু পাস বাড়ান, সেটা ধরে দ্রুতগতিতে বল নিয়ে বারিধারার এক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বাঁ প্রান্ত দিয়ে বক্সের ভেতরে ঢুকে পড়েন নাইজেরিয়ান মিডফিল্ডার জন ওকোলি। বিপদ বুঝে সামনে এগিয়ে আসেন বারিধারা গোলরক্ষক মিতুল মারমা। তাকেও বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে কাটিয়ে ডান পায়ের জোরালো শটে বল জালে ঠেলে উল্লাসে ফেটে পড়েন ওকোলি। আর ৮৯ মিনিটে সাইফের জয়সূচক গোলটি করেন মিডফিল্ডার সাজ্জাদ হোসেন।

মন্তব্য করুন