দেশ ছাড়ার আগে মুমিনুল হক বলেছিলেন, শ্রীলঙ্কায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা হবে না। অর্থাৎ দুই টেস্টের সিরিজে খেলবেন পরীক্ষিতরাই। ২১ জনের প্রাথমিক স্কোয়াড থেকে প্রথম টেস্টের জন্য যে ১৫ জনকে বেছে নেওয়া হয়েছে, তারা পরীক্ষিতই। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজে খেলা দলের সদস্য প্রত্যেকে। শুধু কপাল খারাপ অফস্পিনার নাঈমের। ফেব্রুয়ারিতে হোম সিরিজ খেলেও ১৫ জনে নেই তিনি। লঙ্কান কন্ডিশন বিবেচনায় দল সমন্বয় করতে গিয়ে নাঈমকে বাদ দিতে হয়েছে বলে জানান প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। নাঈমকে বাদ দেওয়ার আরও একটি কারণ অবশ্য রয়েছে, যেটা গোপন রেখেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। হাতের কনিষ্ঠা আঙুলে অস্ত্রোপচারের পর টেস্ট খেলার মতো ফিট নন ২১ বছর বয়সী এ স্পিনার। নাঈম নিজেও সমকালকে বলেছিলেন, চিকিৎসকরা বলেছেন, আঙুল স্বাভাবিক হতে এক বছর লাগবে। যেটা তার মাঠের পারফরম্যান্সকেও প্রভাবিত করছে। টেস্ট, জাতীয় লিগ এবং প্রস্তুতি ম্যাচ কোথাও ভালো করতে পারছেন না তিনি। বোঝাই যাচ্ছে পারফরম্যান্সের কারণেই একাদশ থেকে সোজা স্কোয়াডের বাইরে নাঈম।

কন্ডিশন এবং কম্বিনেশনের যে মেলবন্ধন, তাতে করে তাইজুল, মিরাজের পর তৃতীয় স্পিনার হিসেবে নাঈমের জায়গা হয় না। ক্যান্ডির যে পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে খেলা হবে, তাতে পেসারদের জন্য সুবিধা থাকে। যেখানে আগে কখনও টেস্ট খেলেনি বাংলাদেশ। তবে একটি ওয়ানডে ও টি২০ খেলার অভিজ্ঞতা সম্বল করে আজ লঙ্কানদের মুখোমুখি হবেন মুমিনুলরা। একবেলার অনুশীলন আর খোলা চোখের পিচ পর্যবেক্ষণ এবং প্রতিপক্ষের স্কোয়াডে পেস বোলারে আধিক্য বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশও বোলিং লাইনআপে রাখছে তিন পেসার। ক্যান্ডি থেকে গতকাল ফোনে নান্নু জানান, পাঁচজন বোলার ও ছয় ব্যাটসম্যান নিয়ে হবে একাদশ। উইন্ডিজ সিরিজের পর ক্রিকেটের বাইরে থাকা সাদমানকে বিশ্রাম দিয়ে তামিমের ওপেনিং জুটি করা হতে পারে সাইফকে। বাকি চার ব্যাটসম্যান শান্তকে, মুমিনুল, মুশফিক, লিটন। রাহি, এবাদতের সঙ্গে তৃতীয় সিমার হতে পারেন তাসকিন, শরিফুলের একজন।

বাংলাদেশ স্কোয়াড :মুমিনুল হক (অধিনায়ক), লিটন কুমার দাস, মো. মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল, সাদমান ইসলাম, আবু জায়েদ রাহি, তাইজুল ইসলাম, নাজমুল হোসেন শান্ত, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, এবাদত হোসেন, সাইফ হাসান, ইয়াসির রাব্বি ও শরিফুল ইসলাম।

মন্তব্য করুন