কপালগুণে পাওয়া সুযোগের সর্বোচ্চ সদ্ব্যবহার করলেন প্রভিন জয়াবিক্রমা। শ্রীলঙ্কার সেরা তিন স্পিনার চোটে পড়ায় বাংলাদেশের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে সুযোগ পেয়ে যান তিনি। আর সে সুযোগে বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে অভিষেকে বিশ্বরেকর্ডই করে বসলেন ২২ বছর বয়সী এই শ্রীলঙ্কান। সে সঙ্গে দলকে জয় এনে দিয়ে ম্যাচসেরা হয়েছেন, দেশের পক্ষে রেকর্ড করেছেন জয়াবিক্রমা।

পাল্লেকেলেতে দুই ইনিংস মিলিয়ে ১৭৮ রান ব্যয় করে ১১ উইকেট নিয়েছেন জয়াবিক্রমা। দেড়শ বছরের টেস্ট ইতিহাসে অভিষেকে তার চেয়ে বেশি উইকেট নিয়েছেন কেবল চারজন। এর মধ্যে বাঁহাতি স্পিনার নেই একজনও। অভিষেকে বাঁহাতি স্পিনারদের মধ্যে এতদিন সেরা বোলিংয়ের রেকর্ডটা ছিল অ্যালফ ভ্যালেন্টাইনের। ১৯৫০ সালে ম্যানচেস্টারে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২০৪ রানে ১১ উইকেট নিয়েছিলেন ক্যারিবিয়ান এই স্পিনার। পাল্লেকেলেতে ভ্যালেন্টাইনকে পেছনে ফেলে রেকর্ডটা নিজের করে নিলেন জয়াবিক্রমা। শ্রীলঙ্কার হয়ে অভিষেকে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ডটাও এখন তার দখলে। তার আগে অভিষেকে শ্রীলঙ্কার কোনো বোলার ১০ উইকেটই নিতে পারেননি। প্রথম ইনিংসে ৯২ রানে ৬ উইকেট নিয়েছেন তিনি। অভিষেকে শ্রীলঙ্কার পক্ষে এটি ইনিংসে সেরা বোলিং। আগের রেকর্ডটির মালিক ছিলেন লেগস্পিনার উপুল চন্দনা। ১৯৯৯ সালে ঢাকায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৭৯ রানে ৬ উইকেট নিয়ে রেকর্ডটি গড়েছিলেন তিনি।

টেস্ট ইতিহাসে ১৬তম বোলার হিসেবে অভিষেকে ন্যূনতম ১০ উইকেট নিলেন ২২ বছর বয়সী এই স্পিনার। দেড়শ বছরের টেস্ট ইতিহাসে অভিষেকে তার বোলিং ফিগার শীর্ষ দশে থাকবে। বাংলাদেশের বিপক্ষে উভয় ইনিংসে তিনি নূ্যনতম ৫টি করে উইকেট নিয়েছেন। টেস্ট অভিষেকে সর্বশেষ এমন দেখা গিয়েছিল ১৯৮৮ সালে। ভারতের সাবেক স্পিনার নরেন্দ্র হিরোয়ানি উইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ইনিংসে ৫টি করে উইকেট নিয়েছিলেন।

মন্তব্য করুন