অ্যাতলেটিকো হটাও- লা লিগার এবারের মৌসুম অনেকটা এমনি যাচ্ছে বাকি ফেভারিটদের জন্য। বিশেষ করে শিরোপার বড় দুই দাবিদার বার্সেলোনা আর রিয়াল মাদ্রিদ সমানতালে তাদের শীর্ষস্থান থেকে টেনে নামানোর পরিকল্পনা করে। তাতে এখনও সফল হতে পারেনি দুই দল। একটু ভালোর পর আবার ধাক্কা। অন্যদিকে অ্যাতলেটিকো শুরু থেকে যেভাবে উড়ছিল, সেই ওড়াটা নেই। খেই হারিয়ে নিজেদের কারণেই নিজেরা পড়েছে হিসাবের খাতায়। না হলে বার্সা-রিয়ালকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ঠিকই এতদিন জিতে নিত ট্রফিটা। যাক, আজ অ্যাতলেটিতোর যেমন পরীক্ষা, বার্সার আরও বড়। দু'দলই আটঘাট বেঁধে নামবে শিরোপার দৌড়ে শক্ত অবস্থানে যেতে। তাই ম্যাচটা কাগজে-কলমে শুধুই ম্যাচ হলেও দু'দলেরই মহাগুরুত্বপূর্ণ।

 লড়াইটা দুই বন্ধুরও

মনের বিরুদ্ধেই বার্সা থেকে অ্যাতলেটিকোকে যাওয়া। ওয়ান্ডা মেট্রোপলিটানোতে গিয়ে শুরুতেই চমকে দেন লুইস সুয়ারেজ। তবে মাঝে তার পারফরম্যান্সে কিছুটা ভাটা পড়ে। তবু সাবেক ক্লাব বার্সার প্রতি তার মনের একটা জেদ এখনও কাজ করছে। সেই জেদ থেকেই আজ করে ফেলতে পারেন বড় কোনো অঘটন। যা কিনা বার্সাকে ডোবাতে যথেষ্ট। অন্যদিকে লিওনেল মেসিও চাইবেন দলকে পূর্ণ তিন পয়েন্ট এনে দিতে। মাদ্রিদের ক্লাবটির বিপক্ষে আর্জেন্টাইন তারকার অতীত রেকর্ডও ঝলমলে। তাই এ ম্যাচে সুয়ারেজ আর মেসি সাবেক দুই সতীর্থের ওপর থাকবে আলাদা নজর। চেনা মাঠ ক্যাম্প ন্যু, যেখানে বার্সার জার্সিতে কতটা উল্লাস করেছেন সুয়ারেজ। মেসি বল বানিয়ে দেন আর সুয়ারেজ গোল করেন। আবার সুয়ারেজ অ্যাসিস্ট করেন মেসি গোল করেন। এমনসব স্মৃতি ভুলে আজ দুই বন্ধুই নামবে একে অন্যকে হারানোর লক্ষ্যে।

 বড় সুযোগ বার্সার

এ মুহূর্তে রিয়াল মাদ্রিদ আর বার্সার পয়েন্ট ও ম্যাচ সমান। তাই আজকের ম্যাচটি জয় পেলে চোখ বন্ধ করে একে উঠে যাবে বার্সা। পেছনে পড়বে বাকি দুই দল। এমন সুবর্ণ সুযোগ কাজে লাগাতে পারবে কি কাতালানরা। যদিও বার্সা কোচ ম্যাচটিকে গুরুত্ব দিলেও শিরোপা নির্ধারণী বলতে নারাজ। তার কাছে অবশিষ্ট ম্যাচগুলোর প্রতিটিই গুরুত্বপূর্ণ। তাই শেষ না হওয়া অবধি কোনো কিছুই ফাইনাল বলতে চান না রোনাল্ড কোম্যান, 'এই ম্যাচের ফল যে লিগে চূড়ান্ত ফয়সালা করিয়ে দেবে আমি বলতে পারছি না। তবে ম্যাচটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। পুরো মৌসুমেই আমরা উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে গেলাম। এখন আমরা যেখানে দাঁড়িয়ে, কয়েক মাস আগে এমনটা চিন্তাও করতে পারিনি। চ্যাম্পিয়ন হতে হলে আমাদের প্রতিটি ম্যাচই জিততে হবে। আমার বিশ্বাস, যদি বাকি সব ম্যাচ আমরা জিততে পারি, তবেই আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে পারব।'

দু'দলই রক্ষণ নিয়ে সতর্ক

রক্ষণভাগ নিয়ে বার্সার চিন্তাটা কিছুতেই কমছে না। গত কয়েক ম্যাচের দৃশ্য বিষয়টি নিয়ে আরও গাঢ় করল। ম্যাচে এক গোল কিংবা দুই গোলে এগিয়ে থাকলেও বার্সাকে নিয়ে বাজি ধরা মুশকিল। কোচ কোম্যানও এই অঙ্কটা মেলাতে রাত-দিন খাটছেন। শুধু যে বার্সার চিন্তা তা কিন্তু নয়, রক্ষণ নিয়ে এখন অ্যাতলেটিকোকেও ভাবতে হবে। কেননা বার্সার মতো তারকাসংবলিত দলকে আটকাতে রক্ষণে কোনো রকম ভুল করা চলবে না। ম্যাচের আগে দলটির কোচ সিমিওনেও তেমন আভাস দেন। তা ছাড়া যে দলে মেসির মতো একজন খেলোয়াড় আছেন তাদের ঠেকাতে রক্ষণ দেয়ালই কঠিন থেকে কঠিন করা চাই। তাই হয়তো দু'দলই আজ রক্ষণভাগ ঢেলে সাজানোর চেষ্টা করবে। সেইসঙ্গে মাঠেও দেখেশুনে আক্রমণ সাজাতে পারে।

মন্তব্য করুন