জার্মানি ও পর্তুগালের সঙ্গে একই গ্রুপে পড়েছে ফ্রান্স। একে তো মৃত্যুকূপ, তার ওপর ইউরো মাঠে গড়ানোর পূর্ব মুহূর্তে ঝামেলা লেগেছে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শিবিরে। কিলিয়ান এমবাপ্পের সঙ্গে অলিভার জিরুদের দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে। বুলগেরিয়ার বিপক্ষে ৩-০ গোলের জয়ের পর এমবাপ্পের দিকে ইঙ্গিত করে জিরুদ গণমাধ্যমে পরিস্কার বলেছেন যে, আক্রমণভাগের কয়েকজন খেলোয়াড় তাকে পাস দেননি।

গত মঙ্গলবার বুলগেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের ৪১ মিনিটের সময় হাঁটুতে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন করিম বেনজেমা। তার বদলে খেলতে নেমে জোড়া গোল করেন জিরুদ। কিন্তু এমন পারফরম্যান্সের পরও সতীর্থদের দিকে অসযোগিতার আঙুল তুলেছেন চেলসির এই ফরোয়ার্ড। জিরুদের দুটি গোলই আসে ম্যাচের শেষ দিকে। ৮৩ মিনিটে গোল করার আগে মাঠে নিষ্প্রভই ছিলেন জিরুদ। নিষ্প্রভ থাকার কারণে জানতে চেয়ে এক গণমাধ্যমকর্মী প্রশ্ন করতেই ফরাসি স্ট্রাইকারের সপ্রতিভ উত্তর, 'আপনি বলছেন আমি শান্ত ছিলাম, এর কারণ হলো আমি মাঝেমধ্যে বল চেয়েও পাইনি। তারপর আমি আমার সতীর্থদের যথাসাধ্য ডাকাডাকি করেছি এবং চেষ্টা করেছি বক্সের মধ্যে পাসের বিকল্প সমাধান হতে।' ফরাসি দৈনিক লা ইকুইপের মতে, জিরুদ আঙুল তুলেছেন এমবাপ্পের দিকে। ৩৪ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডের দুটি গোল আসে বেঞ্জামিন পাভার্ড ও উইসাম বেন ইয়েদারের পাস থেকে। তিনি আরও যোগ করেন, 'ইয়েদার ও পাভার্ডের দুটি দুর্দান্ত পাসের কারণে আমি ম্যাচটি ভালোভাবে শেষ করতে সমর্থ হয়েছি। কিন্তু আমরা যদি আরেকটু মনোযোগী হতাম তাহলে আরও গোল করতে পারতাম।'

গণমাধ্যমে এই অভিযোগের পর অনুশীলনের সময় এমবাপ্পের কাছে নাকি ক্ষমা চেয়েছেন জিরুদ। কিন্তু এমবাপ্পে এতে সন্তুষ্ট হতে পারেননি। কোচ দেশমকে ২২ বছর বয়সী এই তারকা জানিয়েছেন যে, পেছনের কাহিনি তুলে ধরতে বৃহস্পতিবার তিনি সংবাদ সম্মেলন করবেন। দেশম অবশ্য শেষ পর্যন্ত বুঝিয়ে শুনিয়ে এমবাপ্পেকে শান্ত করেছেন। তাতেও কি এই আগুন থামবে!

মন্তব্য করুন