গত মাসে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ এবং তার আগে আইপিএলে রান না পাওয়া ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে বাড়তি মনোযোগ ছিল সাকিবের। ফর্মে ফিরতে বায়ো-বাবলের বিধি ভেঙে মিরপুর ইনডোরের আউটারে একদিন অনুশীলনও করেছেন একা একা। আবার ব্যাটিং লাইনআপে তিন-চার নম্বরে অদল-বদলও করছেন। কিন্তু কিছুতেই যেন কিছু হচ্ছে না। ব্যাট হাতে রান পাচ্ছেন না সাকিব। ডিপিএলে এখন পর্যন্ত ছয় ম্যাচ খেলে মোটে রান ৭৩। দু'বার আউট হয়েছেন শূন্য রানে। অধিনায়কের ফর্মহীনতায় তাল মিলিয়ে মাঠে ধুঁকছে মোহামেডানও। গতকাল হারের হ্যাটট্রিক হয়েছে ক্লাবটির।

সাকিবের এই অফফর্মের শুরুটা আইপিএল থেকে। কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে তিন ম্যাচ খেলে ৩৮ রানের বেশি করতে পারেননি। যে কারণে জায়গা হারান একাদশ থেকে। গত মাসে দেশে ফিরে অংশ নেন লঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে। পছন্দের তিন নম্বর পজিশনে ব্যাট করতে নেমে আউট হন যথাক্রমে ১৫, ০ ও ৪ রানে। কয়েক মাস পর টি২০ বিশ্বকাপ বলে রানে ফিরতে বেশ সিরিয়াস হয়ে ওঠেন সাকিব। ডিপিএলের প্রথম ম্যাচে ২২ বলে ২৯ রান করে কিছুটা স্বস্তিতেও ফেরেন। কিন্তু অফফর্ম যে আসলে কাটিয়ে উঠতে পারেননি, সেটি দৃশ্যমান হয়ে ওঠে পরের ম্যাচগুলোতে। পারটেক্স, প্রাইম ব্যাংক, শেখ জামাল, দোলেশ্বর, রূপগঞ্জ- সব দলের বিপক্ষেই রানের জন্য হাঁসফাঁস করতে হয়েছে তাকে। এর মধ্যে পারটেক্স ও রূপগঞ্জের বিপক্ষে ফিরেছেন খালি হাতে। রানের জন্য ব্যাটিং পজিশনও বদল করেছেন। তবে ছয় ম্যাচের তিনটিতে তিন নম্বরে আর তিনটিতে চার নম্বরে খেলেও একবারও ত্রিশের ঘরে পৌঁছাতে পারেননি। ইনিংসপ্রতি ১২.১৬ রান রেট নিয়ে রান সংগ্রাহকদের তালিকায় ৪৭ নম্বরে! অতীতে দলের বিপর্যয়ে অনেকবার ত্রাতা হয়ে উঠলেও এখন নিজেই হয়ে উঠছেন বিপর্যয়ের অন্যতম কারণ।

বৃহস্পতিবার রূপগঞ্জের বিপক্ষে সাকিব যখন ৬ বল খেলে শূন্য রানে থার্ড ম্যাচে ক্যাচ দিয়ে আউট হন, মোহামেডান তখন ১১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে। নাদিফ, ইমন ও ইরফানদের টানা বিদায়ে যা ২৭ রানে ৬ উইকেট পতনের বিপর্যয় তৈরি করে। এরপর শুভাগত হোমের ৩২ বলে ৫২ রানের সুবাদে ১১৩ রান জমা করে গেলেও শেষ পর্যন্ত ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানেই হারতে হয়েছে সাকিবদের। প্রথম তিন ম্যাচে জয় পাওয়া দলটি ছয় ম্যাচশেষেও ৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়ে।

সর্বোচ্চ ১০ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে আপাতত মুশফিকুর রহিমের আবাহনী। যে দলের বিপক্ষে আজ মুখোমুখি লড়াই আছে মোহামেডানের। আবাহনীর মতো ১০ পয়েন্ট আছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবেরও। তামিমদের দল গতকাল ৩ রানে হারায় দোলেশ্বরকে। এ ছাড়া ষষ্ঠ রাউন্ডের খেলায় জয় পেয়েছে খেলাঘর, শেখ জামাল আর গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সও।

বিষয় : সাকিব

মন্তব্য করুন