বিসিবির গঠনতন্ত্রে অনেক কিছুই নতুন সংযোজন করা হয়েছে। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের বাইরে এই প্রথম নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে। পোস্টাল ভোট দেওয়ার সুযোগ রাখা হয়েছে কাউন্সিলরদের জন্য। তারা চাইলে নিজ জেলা থেকে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। বিসিবির ভোটের খুব বেশি দেরি নেই। কাউন্সিলরদের তালিকা চূড়ান্ত হয়ে গেলে এম ফরহাদ হোসেনের নির্বাচন কমিশন ভোটের তারিখ ঘোষণা করবে। কাউন্সিলরদের সব নাম আজই পেয়ে যাবে বিসিবি। কাল পরিচালনা পর্ষদের সভায় বাকি প্রক্রিয়া ঠিক হবে। সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানান, পরিচালনা পর্ষদের সভার পরে বসবে নির্বাচন কমিশন।

ক্লাব ক্যাটাগরির কাউন্সিলরদের নামের তালিকা পেয়ে গেছে বিসিবি। এই ক্যাটাগরিতে ভোট হওয়ার সম্ভাবনা নেই। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পরিচালক নির্বাচিত হতে পারেন ১২ জন। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কোটায় পরিচালক হচ্ছেন জালাল ইউনুস ও আহমেদ সাজ্জাদুল আলম ববি। তিন নম্বর ক্যাটাগরি থেকে পরিচালক হিসেবে থেকে যাচ্ছেন খালেদ মাহমুদ সুজন। তিনি সাবেক ক্রিকেটার কোটায় কাউন্সিলর হয়েছেন। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটার কোটায় ১০ জনের বাকি ৯ কাউন্সিলর হলেন সেলিম শাহেদ, আজম ইকবাল, ফয়সাল হোসেন ডিকেন্স, সাজ্জাদুল আহমেদ মনসুর (শিপন), হান্নান সরকার, আব্দুর রাজ্জাক, তালহা যোবায়ের, আহসান উল্লাহ হাসান ও নাফিস ইকবাল। রকিবুল হাসান, ফারুক আহমেদ, মিনহাজুল আবেদীন নান্নু, হাবিবুল বাশার, রাজিন সালেহ অধিনায়ক কোটার কাউন্সিলর। এই ক্যাটাগরির বাকি কাউন্সিলর বিসিবির পছন্দেই হয়েছে। এ ক্যাটাগরিতেও নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা নেই। নির্বাচন হতে পারে ঢাকা বিভাগের দুটি ও রাজশাহী বিভাগের একজন পরিচালক পদে। ঢাকা বিভাগের ১৩ জেলা ও বিভাগ মিলে ১৪ জন কাউন্সিলর হয়ে গেছেন। বিভাগের কাউন্সিলর হয়েছেন এমডি সাঈদ মুল্লাহ, ঢাকা জেলার কাউন্সিলর মোজাফর হোসেন পল্টু, মানিকগঞ্জ জেলার কাউন্সিলর নাঈমুর রহমান দুর্জয়, কিশোরগঞ্জ জেলার কাউন্সিলর সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম, টাঙ্গাইলের কাউন্সিলর মির্জা মঈনুল হোসেন লিন্টু, নারায়ণগঞ্জের কাউন্সিলর তানভির আহমেদ টিটু, মুন্সীগঞ্জের জুনায়েত হোসেন, শরীয়তপুরের মোজাম্মেল হক চঞ্চল, গোপালগঞ্জের ব্যারিস্টার শেখ নাঈম, রাজবাড়ীর শফিকুল ইসলাম। ফরিদপুর, মাদারীপুর, গাজীপুর ও নরসিংদী জেলার কাউন্সিলর আজ চূড়ান্ত হবেন। ময়মনসিংহ বিভাগের কাউন্সিলররাও হয়তো ঢাকা বিভাগে ভোট দেবেন।

ভালো খবর হলো, আকরাম খানের পর আরও একজন সাবেক ক্রিকেটার বিভাগীয় পর্যায় থেকে কাউন্সিলর হলেন। খালেদ মাসুদ পাইলট রাজশাহী বিভাগ থেকে কাউন্সিলর মনোনীত হয়েছেন। বিসিবির সবুজ সংকেত পেলে পরিচালক পদে নির্বাচন করবেন তিনি। সে ক্ষেত্রে তাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে বর্তমান পরিচালক সাইফুল আলম স্বপন চৌধুরীকে। পাবনা জেলার কাউন্সিলর স্বপন নিজের পক্ষে ভোট টানতে লবিং করছেন বলে জানা গেছে। বাকি বিভাগে ভোট হওয়ার সম্ভাবনা নেই। যে বিভাগেই ভোট হোক, কাউন্সিলররা চাইলে জেলায় বসেই পোস্টাল ভোট দিতে পারবেন। করোনাকালে কাউন্সিলরদের জন্য যেটা সহজ হবে।

মন্তব্য করুন