ওয়েস্টহামের মাঠে পা হড়কানোর অভ্যাস ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বেশ পুরোনো। এবারও সে পথেই এগোচ্ছিল তারা। শুরুতে গোল খাওয়ার পর ক্রিশ্চিয়নো রোনালদোতে সমতায় ফেরা। এই ১-১ স্কোরলাইন নিয়েই সমাপ্তি হতে যাচ্ছিল ম্যাচটি। কিন্তু শেষ দিকে নতুন মোড়। ৮৯তম মিনিটে জেসে লিনগার্ডের বুলেট গতির শট এগিয়ে দেয় ম্যানইউকে। তাতেই জয় প্রায় নিশ্চিত রেড ডেভিলদের। তার পরও যে নাটক শেষ হয়নি।

যোগ করা মিনিটে ডি বক্সে বল থামাতে গিয়ে হাতে লাগিয়ে বসেন ইউনাইটেডের লুক শ। তাতে রেফারির চোখ এড়ায়নি। ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন তিনি। তখনই পরিকল্পনায় বদল। মাঠের খেলোয়াড়দের কাউকেই এই পেনাল্টি শট নেওয়ার উপযুক্ত মনে হয়নি ওয়েস্টহাম কোচ ডেভিড ময়েজের। শুট নেওয়ার জন্য তখনই স্পেশালভাবে নামানো হয় মার্ক নোবেলকে। তিনি উল্টো ডুবিয়ে দিলেন স্বাগতিকদের তরী। তার পেনাল্টি ঠেকিয়ে নায়ক বনে যান ম্যানইউর গোলকিপার ডি গিয়া। তাতে ২-১ গোলে জিতে ম্যানইউ। নায়ক হতে পারতেন রোনালদো! ম্যাচের ৩৫তম মিনিটে ম্যানইউকে সমতায় ফেরান তিনি। এরপর ৪৬তম মিনিটে রোনালদোর ডান পায়ের শট আটকে দেয় ওয়েস্টহাম গোলকিপার। এ নিয়ে ম্যানইউর হয়ে দ্বিতীয় অভিষেকের পর তিন ম্যাচ খেলে চার গোল করে ফেললেন সিআর সেভেন। এই জয়ে প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট টেবিলের দুইয়ে ম্যানইউ। ৫ ম্যাচ থেকে ১৩ পয়েন্ট তুলেছে প্রিমিয়ার লিগের ফেভারিটরা। একে থাকা লিভারপুলের পয়েন্টও ম্যানইউর সমান ১৩। তবে গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় ম্যানইউকে ছাড়িয়ে একে এখন অল রেডসরা।

মন্তব্য করুন