ফুটবল বিষয়ে অনেক জ্ঞান রাখতেন তিনি। এই অঞ্চলে ফিফা-এএফসির স্বীকৃত একমাত্র রিজিওনাল ইনস্ট্রাক্টর ছিলেন তিনি। ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ থেকে পড়াশোনা করেও ফুটবলের প্রতি ভালোবাসার টানে অন্য কোনো পেশায় জড়াননি। ফুটবলের অন্তঃপ্রাণ আহমেদ সাঈদ আল ফাতাহ মাত্র ৪১ বছর বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গতকাল সকালে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান। তার আকস্মিক মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ক্রীড়াঙ্গনে। ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের আল্লাহু কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সকাল ১১টায় মরহুমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর লাশ নিয়ে যাওয়া হয় তার গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ায়। সেখানেই তাকে দাফন করা হয়। তিনি স্ত্রী, পাঁচ বছর বয়সী এক মেয়ে, মা, এক ভাইসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। ফাতাহর মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন সাইফ পাওয়ারটেকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরফদার মো. রুহুল আমিন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত সাইফ গ্লোবাল স্পোর্টসের জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন ফাতাহ। ২০০৪ সালে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনে (বাফুফে) মিডিয়া ম্যানেজার হিসেবে যোগ দেন ফাতাহ। ২০১১ সাল পর্যন্ত এ দায়িত্বে ছিলেন। এরপর বাফুফের মার্কেটিং-বিপণন বিভাগেও কাজ করেছেন। ২০১৫ সালে বাফুফের বর্তমান সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিনের ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবে কাজ করেছেন। ২০১৭ সালে সাইফ পাওয়ারটেকে যোগ দেন তিনি।

মন্তব্য করুন