শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাও লড়াই হয়েছিল, আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তো পাত্তাই পেল না টাইগাররা। বোলিং, ব্যাটিং- দুই বিভাগেই দৈন্য দশা ফুটে উঠেছে। আইরিশদের বিপক্ষে মুস্তাফিজ ফিরলেও বোলিংয়ে উন্নতি নেই; বরং অবনতি হয়েছে। ব্যাটিংয়ের অবস্থা তো তথৈবচ! দিনে দিনে যেন আরও বাজে হচ্ছে ব্যাটিং। দুই ম্যাচে একটি হাফসেঞ্চুরিও করতে পারেননি কেউ। প্রস্তুতি ম্যাচের পারফরম্যান্স কি টাইগারদের জন্য জেগে ওঠার বার্তা! অথচ আজ বাদে কাল থেকে মাঠে গড়াচ্ছে বিশ্বকাপ।\হপ্রস্তুতি ম্যাচের এই ধাক্কা কাটিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বকাপে জ্বলে উঠতে পারবে কিনা, সেটা সময়ই বলে দেবে। তবে ঘরের মাটিতে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে যে আত্মবিশ্বাস নিয়ে বিশ্বকাপ খেলতে গিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকরা, সেখানে নিশ্চিতভাবেই ধাক্কা লেগেছে। বিশেষ করে আইরিশদের কাছে নাকাল হওয়াটা যেন বাস্তবের জমিনে নামিয়ে এনেছে বাংলাদেশ দলকে। ব্যাটিং নিয়ে দুশ্চিন্তাটা অবশ্য অনেক দিনের। সম্প্রতি যে তিনটি সিরিজ বাংলাদেশ জিতেছে, সেখানেও ব্যাটাররা ছন্দে ছিলেন না। এর পরও প্রত্যাশা ছিল ভঙ্গুর শ্রীলঙ্কা ও পুঁচকে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে ছন্দে ফিরে বিশ্বকাপটা শুরু করতে পারবেন। সে মিশনও সফল হলো না। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৭ উইকেটে ১৪৭ রান তোলার পর গতকাল ছিল শেষ সুযোগ। আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামের নার্সারি গ্রাউন্ডে আইরিশ ব্যাটারদের মারকুটে ব্যাটিং দেখে মনে হয়েছিল এবার হয়তো রান আসবে। কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের সময় যেন ভোল পাল্টে বোলিংবান্ধব হয়ে ওঠে উইকেট। প্রথম দুই ওভারেই ফিরে যান দুই ওপেনার নাঈম শেখ ও লিটন দাস। তৃতীয় ওভারে আউট হন মুশফিকুর রহিমও এবং বেশ দৃষ্টিকটুভাবে বোল্ড হয়েছেন।\হ১৫ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন সৌম্য সরকার। ৩০ বলে ৩৭ রান করে রান আউট হয়ে ফিরতে হয় তাকে। এরপর নুরুল হাসান সোহান চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু শামীম, মেহেদীরা তাকে সঙ্গ দিতে পারেননি। সোহানের\হ২৪ বলের ৩৮ রানের ইনিংসটি কেবল পরাজয়ের ব্যবধান কমিয়েছে।\হএর আগে টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে নেমে বাংলাদেশের বোলিংটাও ভালো হয়নি। তাসকিন কিছুটা ভালো বোলিং করেছিলেন, চার ওভারে ২৬ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন এই পেসার। তবে হতাশ করেছেন মুস্তাফিজুর ও শরিফুল। আয়ারল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের টুইটার পেজে আপলোড করা ভিডিওতে এই দু'জনকে যেভাবে গ্যারেথ ডেলানি উড়িয়ে উড়িয়ে সীমানাছাড়া করেছেন, তাতে তাদের অসহায়ত্ব স্পষ্ট ফুটে উঠেছে। মুস্তাফিজ চার ওভারে ৪০ ও শরিফুল ৪১ রান দিয়েছেন। বেধড়ক পিটুনি খেয়েছেন দলের মূল স্পিনার নাসুম আহমেদও। পল স্টার্লিংকে বোল্ড করে আইরিশদের ওপেনিং জুটিতে ভাঙন ধরালেও তিন ওভারে ৩৩ রান দিয়েছেন এ বাঁহাতি স্পিনার। তার চেয়ে বরং অফস্পিনার মেহেদী মিতব্যয়ী ছিলেন। তিন ওভারে ১৫ রান দিয়েছেন তিনি। শেষ ১০ ওভারে ৯৭ রান যোগ করে আয়ারল্যান্ড। তখন ঝড় তোলেন গ্যারেথ ডেলানি। ৩৩ বলে হাফসেঞ্চুরি করা এ আইরিশ ব্যাটার শেষ পর্যন্ত ৮টি ছয় ও ৩টি চারে ৫০ বলে ৮৮ রানে অপরাজিত ছিলেন। প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে গতকাল রাতেই ওমানের পথে রওনা হয়ে গেছে বাংলাদেশ দল। ১৭ অক্টোবর বিশ্বকাপের প্রথম দিনে তাদের প্রতিপক্ষ স্কটল্যান্ড।\হ

আয়ারল্যান্ড :২০ ওভারে ১৭৭/৩ (ডেলানি ৮৮*, টেক্টর ২৩*, বালবিরনে ২৫; তাসকিন ২/২৬, নাসুম ১/৩৩)

বাংলাদেশ :২০ ওভারে ১৪৪ (নাঈম ৩, লিটন ১, সৌম্য ৩৭, মুশফিক ৪, আফিফ ১৭, সোহান ৩৮, শামীম ১, মেহেদী ৯, তাসকিন ১৪*,\হনাসুম ০, মুস্তাফিজ ৭; অ্যাডায়ার ৩/৩৩,\হইয়াং ২/২১, লিটল ২/২২)

ফল :আয়ারল্যান্ড ৩৩ রানে জয়ী

মন্তব্য করুন