স্বাধীনতা কাপ ফুটবলে শুভসূচনা করেছে বসুন্ধরা কিংস। গতকাল কমলাপুর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে নেভি ফুটবল দলকে ৬-০ গোলে হারিয়েছে কিংস। বসুন্ধরার হয়ে বসনিয়ান মিডফিল্ডার স্টোজন দুটি গোল করেন। এ ছাড়া জোনাথন, কিংসলে, রবসন ও হাবিবুর একটি করে গোল করেন। মঙ্গলবার একই স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে উপভোগ্য ফুটবল খেলা পুলিশ ফুটবল ক্লাব ১-১ গোলে রুখে দিয়েছে একেএম মারুফুল হকের চট্টগ্রাম আবাহনীকে।

টার্ফে খেলতে অনভ্যস্ত চট্টগ্রাম আবাহনী ও পুলিশ ফুটবল ক্লাবের খেলোয়াড়দের দেখে মনে হয়েছে তারা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেননি এ মাঠে খেলে। তবে ম্যাচের শুরুতেই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে পুলিশ ফুটবল দল। আগে গোল করে জয়ের আশাও জাগায় তারা; কিন্তু পারেনি। বরং পুরো ম্যাচজুড়ে নিষ্প্রভ থাকা চট্টগ্রাম আবাহনীর জন্য ড্রটি খেলা শেষে স্বস্তি হয়ে এসেছে। প্রথম মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারত পুলিশ। ডান দিক থেকে আফগানিস্তানের আমিরুদ্দিন শারিফির ক্রস গোলপোস্টের সামনে থেকেও ঠিকমতো পা লাগাতে পারেননি আমিরুল। আক্রমণের পসরা সাজানো পুলিশ গোল পায় বিরতির পর। ম্যাচের ৪৮ মিনিটে বাঁ দিক থেকে বাবলুর ক্রস চট্টগ্রাম আবাহনীর গোলরক্ষক আজাদ হোসেন গ্লাভসে ঠিকমতো রাখতে না পারলে বল চলে যায় ডেনিলসন রদ্রিগেজের কাছে। ডান পায়ের প্লেসিং শটে লক্ষ্যভেদ করেন এই মিডফিল্ডার। গোল হজমের দুই মিনিট পরই পুলিশ ডিফেন্ডারের ভুলে পেনাল্টি পায় চট্টগ্রাম আবাহনী। রাশেদুল আলমের হাতে বল লাগলে পেনাল্টির বাঁশি বেজে ওঠে। নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার ইবিমোবোওই থ্যাঙ্কগড পিটার দেখেশুনে গোলকিপারের বিপরীত দিক দিয়ে লক্ষ্যভেদ করে আবাহনীকে সমতায় ফেরান।

মন্তব্য করুন