টানা পতনের মধ্যেও বেড়েছে বীমার দর

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

টানা কয়েকদিন বৃদ্ধির পর গতকাল সোমবার তালিকাভুক্ত ৩৭ মেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে ৩৪টিরই বাজারদর কমেছে। এতে খাতটি সার্বিকভাবে পৌনে ৪ শতাংশ দর হারিয়েছে। বাজার-সংশ্নিষ্টরা জানান, টানা বৃদ্ধির পর সোমবার এ খাতের দর কমাকে 'দর সংশোধন' বলেই মনে করছেন তারা। মিউচুয়াল ফান্ডের দরপতনের দিনে বেড়েছে বীমা খাতের প্রায় সব শেয়ারের দর।

তবে আগের কয়েকদিনের ধারাবাহিকতায় গতকালও দিনের লেনদেন শুরু হয় দরপতনে। প্রথম ঘণ্টায় অধিকাংশ শেয়ার দর হারানোয় প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৬ পয়েন্ট হারিয়ে ৫৩০৭ পয়েন্টে নেমেছিল। তবে দুপুর ১২টা ৮ মিনিটে সূচক ৫৩০৬ পয়েন্টে নামার পর আইসিবি শেয়ার কিনে পরের আধা ঘণ্টায় সূচকটিকে ওই অবস্থান থেকে ৩২ পয়েন্ট বৃদ্ধি করে ৫৩৩৮ পয়েন্টে নিয়ে যাওয়া হয়। সূচকের ওই অবস্থান ছিল রোববারের তুলনায় ৫ পয়েন্ট বেশি। অবশ্য শেষ পর্যন্ত সূচকের ওই বৃদ্ধি ধরে রাখা যায়নি।

দিনের লেনদেন শেষে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, মিউচুয়াল ফান্ডের পাশাপাশি গতকাল অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারদর কমেছে। মিশ্রধারায় ছিল ব্যাংক, খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাত। বাকি সব খাতের সিংহভাগ শেয়ারের দর কমেছে। ডিএসইতে ১১৬ শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের বাজারদর বেড়েছে, কমেছে ১৯৮টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৯টির দর। এতে ডিএসইএক্স ১৪ পয়েন্ট হারিয়ে ৫৩১৮ পয়েন্টে নেমেছে। অপর শেয়ারবাজার সিএসইতে ৭৫ শেয়ার ও ফান্ডের দরবৃদ্ধির বিপরীতে ১৫৬টির দর কমেছে, অপরিবর্তিত ছিল ৩২টির দর।

পর্যালোচনায় দেখা গেছে, গতকাল মিউচুয়াল ফান্ড খাতের ৩৭টি ফান্ডের মধ্যে অন্তত পাঁচটি দিনের সার্কিট ব্রেকার নির্ধারিত সর্বনিম্ন দরে কেনাবেচা হয়। এগুলো হলো- ইবিএল এনআরবি, আইসিবি তৃতীয় এনআরবি, আইসিবি এমপ্লয়ি প্রথম, ফনিক্স ফাইন্যান্স প্রথম ও এসইএমএল আইবিবিএল ফান্ড। ডিএসইতে দরপতনের শীর্ষ দশের নয়টিই এবং শীর্ষ ২০টির মধ্যে ১৭টিই ছিল মিউচুয়াল ফান্ড, দর হারায় ৫ থেকে ৯ শতাংশ। এদিকে টানা কিছুদিন দরপতনের পর গতকাল আবার বীমা খাতের প্রায় সব শেয়ারের দর বেড়েছে। খাতটির ৪৭ কোম্পানির মধ্যে ৪৬টিরই বাজারদর বেড়েছে। গড়ে এ খাতের সার্বিক শেয়ারদর বেড়েছে সাড়ে ৩ শতাংশ। এর মধ্যে ঢাকা ইন্স্যুরেন্স, গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স ও প্রাইম ইন্স্যুরেন্সের শেয়ার সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে (১০ শতাংশ বেশি) কেনাবেচা হয়েছে। বীমার বাইরে গতকাল এমারেল্ড অয়েল, রেকিট বেনকিজার, রানার অটোমোবাইলস, সিলভা ফার্মার শেয়ারও সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়। তবে পিপলস লিজিংয়ের শেয়ার সার্কিট ব্রেকারের সর্বনিম্ন দরে কেনাবেচা হয়েছে।

খাতওয়ারি লেনদেন পর্যালোচনায় দেখা গেছে, ব্যাংক খাতের ১০টির দরবৃদ্ধির বিপরীতে ১১টির দর কমেছে, অপরিবর্তিত নয়টির দর। আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের ছয়টির দর বেড়েছে, কমেছে ১০টির। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের পাঁচটির দর বেড়েছে, কমেছে ১০টির। প্রকৌশল খাতের নয়টির দর বেড়েছে, কমেছে ২৪টির। ওষুধ ও রসায়ন খাতের আটটির দর বেড়েছে, কমেছে ২২টির।