এবার শেয়ার ধারণের ভুল তথ্য এমএল ডাইংয়ের

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০১৯      

আনোয়ার ইব্রাহীম

শেয়ার ধারণের বড় ধরনের ভুল তথ্য দিয়ে এবার সংকট তৈরি করেছে বস্ত্র খাতের কোম্পানি এমএল ডাইং। জুনে কোম্পানিটির মোট শেয়ারে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার ধারণের হার ১৫ শতাংশ বেড়েছে- গত সপ্তাহে এমন তথ্য দেওয়ার পর গত রোববার বিকেলে তা সংশোধন করা হয়েছে। সমকালের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং এম এল ডাইংয়ের কাছে জানতে চাওয়ার পর এ তথ্য সংশোধন করেছে কোম্পানিটি। নতুন তথ্য অনুযায়ী গত মাসে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার বেড়েছে মোটের মাত্র শূন্য দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ।

এমন ভুল তথ্যে বিনিয়োগ করে সংকটে পড়েছেন অনেক বিনিয়োগকারী। কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ার বিপুল পরিমাণ বেড়েছে- এমন তথ্যে রোববার এর শেয়ারদর ১০ শতাংশ বেড়েছিল। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির গড়ে এক লাখেরও কম শেয়ার কেনাবেচা হয়। ওই তথ্যের কারণে রোববার শুধু ডিএসইতেই কোম্পানিটির প্রায় ৩৩ লাখ ৬৮ হাজার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছিল, যা গত সোয়া বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। অবশ্য তথ্যটি সংশোধনের পর গতকাল সোমবার শেয়ারটির লেনদেন আবার এক লাখ ৬১ হাজার শেয়ারে নেমেছে।

ডিএসইতে এমন ভুলের ঘটনা এবারই প্রথম নয়। চলতি বছরের শুরুতে বীমা খাতের গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স এমন ভুল তথ্য দেওয়ায় শেয়ারটির দরে বড় উল্লম্ম্ফন হয়েছিল। পরে সমকালে প্রতিবেদন প্রকাশের পর কোম্পানিটি তা সংশোধন করে। এতে শেয়ারটির দরেও বড় পতন হয়। ওই ঘটনায় কোম্পানিটির সংশ্নিষ্ট দুই কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছিল। ডিএসইর ওয়েবসাইটে গত বৃহস্পতিবার প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, জুনের শেষে কোম্পানিটিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ধারণ করা শেয়ারের হার মোটের ৩৭ দশমিক ৯৮ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, যা গত মে মাসের শেষে ছিল ২৩ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ। একই সঙ্গে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ধারণ করা শেয়ারের হার ২৩ দশমিক ৬৮ শতাংশ থেকে কমে ৮ দশমিক ৭৩ শতাংশে নামে।

রোববার সকালে এ বিষয়ে জানতে চাইলে এম এল ডাইং কোম্পানির শেয়ার বিভাগের এক কর্মকর্তা সমকালকে জানান, তাদের দেওয়া তথ্যই ঠিক। এ বিষয়ে কোম্পানি সচিব আতিকুর রহমান লিটনের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি ব্যস্ত আছেন বলে কথা বলেননি।

ডিএসইর কাছে এ বিষয়ে তথ্য চাইলে সংশ্নিষ্ট এক কর্মকর্তা সমকালকে জানান, এমএল ডাইংয়ের তথ্য হুবহু প্রকাশ করেছে ডিএসই। এরপর ডিএসইর পক্ষ থেকেও কোম্পানিটির কাছে ওই তথ্য সঠিক কি-না তা জানতে চাওয়া হয়। প্রথমে আগের দেওয়া তথ্য সঠিক বলে দাবি করেন কোম্পানি সচিব। তার এ দাবির পক্ষে প্রয়োজনীয় নথি চেয়ে চিঠি পাঠালে বিকেলে কোম্পানিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, শেয়ার ধারণের তথ্যে ভুল রয়েছে। কোম্পানিটি  পরে সংশোধিত তথ্য পাঠালে তা ডিএসই ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে।

ডিএসইর ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, ভুলটির দায় নিরূপণে কাজ করছে স্টক এক্সচেঞ্জ। একই সঙ্গে এমন ভুল যাতে ভবিষ্যতে না হয়, তা নিশ্চিত করারও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির মুখপাত্র সাইফুর রহমান জানান, বিষয়টি জেনে ব্যবস্থা নেবেন তারা।