সুনামগঞ্জে দোটানায় বিএনপির চেয়ারম্যানরা

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

প্রকাশ: ১২ জানুয়ারি ২০১৯      

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

সর্বশেষ ২০১৪ সালের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জের ১১ উপজেলার মধ্যে ১০টি উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এর মধ্যে সাতটিতেই জয়ী হয়েছিল বিএনপি। পরে অবশ্য দিরাই উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান তালুকদার আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। বিএনপির বাকি ছয় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আসন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন কি-না, এমন প্রশ্ন রয়েছে সংশ্নিষ্ট উপজেলাগুলোতে।

গত বুধবার ছয় চেয়ারম্যানের মধ্যে চারজনের সঙ্গে আলোচনা করে বোঝা গেছে, তারা দোটানায় রয়েছেন। কেউ কেউ অবশ্য বলেছেন, 'দলের সিদ্ধান্তের বাইরে কিছুই করার সুযোগ নেই তাদের।' ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কারাগারে রয়েছেন। আর বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার অবস্থান জানা যায়নি।

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের সদ্য পদত্যাগী চেয়ারম্যান জেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি দেওয়ান জয়নুল জাকেরীন বললেন, 'সম্প্রতি হওয়া সংসদ নির্বাচনের মতো নির্বাচন হলে অংশগ্রহণ করা হবে অর্থহীন। এর পরও দলের সিদ্ধান্তের বাইরে ব্যক্তিগত কোনো সিদ্ধান্ত নেব না আমি।'

জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা শামছুল আলম তালুকদার ঝুনু মিয়া বলেন, 'নির্বাচন করার ইচ্ছা আছে। তবে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেইনি। সবকিছু নির্ভর করছে পরিস্থিতির ওপর।'

শাল্লা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি গণেন্দ্র চন্দ্র সরকার বলেন, 'দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যাব না আমি।'

তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান কামরুল বলেন, 'দলীয় সিদ্ধান্তের মধ্যেই থাকতে চাই। দল নির্বাচনে না গেলেও ভিন্ন প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে হলে দলীয় ইঙ্গিত নিয়েই করব। দল না চাইলে করব না।'

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার মতামত নেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে তার এক সমর্থক বলেন, দোটানায় থাকলেও নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন হারুন অর রশিদ।'

তবে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা বিএনপি সভাপতি ফারুক আহমদ এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।