ধর্ষণের পর হত্যা হবিগঞ্জে ৪ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৯      

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে ফাতেমা বেগম (১৫) নামে এক কিশোরীকে গণধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় করা মামলায় চার আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। সোমবার বিকেল ৫টায় হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ হালিম উদ্দিন চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় দণ্ডপ্রাপ্তরা আদালতে উপস্থিত ছিল। এ ঘটনায় দু'জনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। ফাতেমা বেগম উপজেলার হরিপুর গ্রামের আরব আলীর মেয়ে। দণ্ডপ্রাপ্তরা একই গ্রামের নুর মিয়ার ছেলে মন্নাফ মিয়া, রজব আলীর ছেলে বাবুল মিয়া, মখলিছ মিয়ার ছেলে সাইফুল মিয়া ও আনমন গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে রাজু মিয়া। খলাসপ্রাপ্তরা হলো আলাল মিয়া ও খালেক মিয়া।

আদালতের বরাত দিয়ে কোর্ট ইন্সপেক্টর আল আমিন হোসেন জানান, ২০০২ সালের ২০ আগস্ট আসামিরা কৌশলে ওই কিশোরীকে রাতে নৌকায় ঘুরতে নিয়ে যায়। এ সময় তারা তাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে। এ ঘটনায় পরদিন নিহতের বোন রোখশানা আক্তার বাদী হয়ে ছয়জনের বিরুদ্ধে একটি মমালা করেন। ২০০৩ সালের ১৯ জুন ছয়জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দেওয়া হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে আদালতে সাক্ষ্য শেষে আজ রায় ঘোষণা করা হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি আবু হাশিম মোল্লা মাসুম জানান, এ রায়ে বাদী ও তার পরিবারের লোকজন সন্তুষ্ট। দীর্ঘদিন পর হলেও রায় হওয়ায় খুশি তারা।