শাল্লায় কাজ না করে প্রকল্পের টাকা গায়েব

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৯      

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের কালীচরণ দাসের বাড়ির একটি মন্দিরের জন্য জেলা পরিষদ থেকে বরাদ্দকৃত ১ লাখ ৮২ হাজার টাকার একটি প্রকল্পের হদিস নেই। অর্থ উত্তোলন করে আত্মসাৎ করা হয়েছে মর্মে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন কালীচরণ দাস।

২০১৮-১৯ অর্থবছরে সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ থেকে উপজেলার বাহাড়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের রঘুনাথপুর গ্রামে কালীচরণ দাসের বাড়ির কালীমন্দির উন্নয়নের জন্য ১ লাখ ৮২ হাজার টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। মন্দির উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়নের দায়িত্ব পান সংশ্নিষ্ট ইউপি সদস্য প্রসেনজিৎ দাস। কিন্তু মন্দিরের কোনো উন্নয়ন কাজ না করেই অর্থ উত্তোলন করে সম্পূর্ণ টাকা আত্মসাৎ করেন তিনি। ইউপি সদস্য প্রসেনজিৎ দাসের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন কেটে দেন।

ইউএনও আল মুক্তাদির হোসেন বলেন, কালীচরণ দাস নামে একজন এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।