আবু সিনা ছাত্রাবাস ভাঙা বন্ধ না হলে আন্দোলন

প্রকাশ: ১৯ জুলাই ২০১৯

সিলেট ব্যুরো

আবু সিনা ছাত্রাবাস ভাঙা বন্ধ না হলে আন্দোলন

আবু সিনা ছাত্রাবাস ভবন ভেঙে ফেলার প্রতিবাদে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে উন্মুক্ত সংবাদ সম্মেলন করে সিলেটের ঐতিহ্য রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ নাগরিক সমাজ- সমকাল

সিলেটের দেড়শ' বছরের পুরনো স্থাপনা আবু সিনা ছাত্রাবাস রক্ষার আবারও দাবি জানিয়েছে ঐক্যবদ্ধ নাগরিক সমাজ। দাবি না মানা পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে বলেও জানানো হয় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে উন্মুক্ত সংবাদ সম্মেলনে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, একটি হাসপাতাল নির্মাণের জন্য সব আপত্তি ডিঙিয়ে ভেঙে ফেলা হচ্ছে সিলেটের ঐতিহাসিক নিদর্শন আবু সিনা ছাত্রাবাসটি। ভেতরের অংশ ভাঙা শেষ করে এখন সামনের অংশ ভাঙার প্রক্রিয়া চলছে। অথচ সিলেটের সর্বস্তরের মানুষের পক্ষ থেকে ঐতিহ্য রক্ষা করে অন্যত্র হাসপাতাল নির্মাণের দাবি জানানো হয়েছে। দাবি না মানা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয় সংবাদ সম্মেলনে। বলা হয়, এই পুরনো স্থাপনা সারাদেশের সম্পদ। এই ভবন ইতিহাসের সাক্ষী। এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে সিলেটের ইতিহাস-ঐতিহ্য। এটি রক্ষা করে অন্যত্র হাসপাতাল নির্মাণ করা হলে সিলেটবাসী অনেক উপকৃত হবে। একদিকে যানজট থেকে বাঁচবে, অন্যদিকে পরিবেশও রক্ষা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন সিলেটের ঐতিহ্য সংরক্ষণে ঐক্যবদ্ধ নাগরিক সমাজের সদস্য সচিব জাসদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাকির আহমদ। স্বাগত বক্তব্য দেন বাপার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম। এ সময় বক্তব্য দেন- সাম্যবাদী দলের কমরেড ধীরেন সিংহ, গণতন্ত্রী পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি ব্যারিস্টার আরশ আলী, সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম, ভাষাশহীদ মতিন উদ্দিন চৌধুরী জাদুঘরের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রত্নতত্ত্ব সংগ্রাহক ডা. মোস্তাফা শাহজামান চৌধুরী বাহার, ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় পলিট ব্যুরোর সদস্য কমরেড সিকন্দর আলী, বাসদের সমন্বয়ক আবু জাফর, অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন সুমন, সেভ দ্য হেরিটেজের প্রধান নির্বাহী আব্দুল হাই আর হাদী প্রমুখ। আসাম ও ব্রিটিশ স্থাপত্যরীতির নান্দনিক স্থাপনা ১৬৯ বছরের ঐতিহ্যের স্মারক আবু সিনা ছাত্রাবাস ভবন। ১৮৫০ সালে সিলেট নগরীর কেন্দ্রস্থলে ইউরোপীয় মিশনারিরা এ ভবনের প্রথম পর্বের নির্মাণ কাজ শুরু করে।