গরু চুরি ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা

দোয়ারাবাজার

প্রকাশ: ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

দোয়ারাবাজার উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গরু চুরির হিড়িক পড়েছে। উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের গ্রামগুলোতে গরু চুরি আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে। উপজেলাজুড়ে গত তিন মাসে অন্তত অর্ধশতাধিক গরু চুরির ঘটনার খবর পাওয়া গেছে। ফলে গ্রামের কৃষকরা রাত জেগে গোয়ালঘর পাহারা দিচ্ছেন।

গত শুক্রবার রাতে উপজেলা সদরের নৈনগাঁও গ্রামের কৃষক সাজিদ আলীর দুটি ষাঁড় চুরি হওয়ার পর পার্শ্ববর্তী ছাতক উপজেলার খাইরগাঁও গ্রাম থেকে ষাঁড় দুটি উদ্ধার করা হয়। একইভাবে গত দুই মাসে উপজেলা সদর ইউনিয়নের বাজিতপুর (পূর্বপাড়া) গ্রামের কৃষক আখলুছ আলীর সাতটি, রমজান আলীর একটি, নুর হোসেনের একটি, আব্দুল মান্নানের একটি, সাইদুল হক সিরাজীর একটি, ইলিয়াছ আলীর একটি, পশ্চিম মাছিমপুর গ্রামের আব্দুল ওয়াহিদের দুটি, নরসিংপুর ইউনিয়নের দ্বীনেরটুক গ্রামের মাহমুদুল হকের তিনটি, নতুন সিরাজপুর গ্রামের জিয়াউল হকের দুটি, বীরেন্দ্রনগর গ্রামের কনু মিয়ার পাঁচটিসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে গরু চুরি হয়। গত জুলাই মাসে দোয়ারাবাজার সদর ইউনিয়নের নৈনগাঁও গ্রামের কৃষক আঞ্জব আলীর পাঁচটি, আব্দুস শহিদ বতু মিয়ার দুটি, মহেন্দ্র দাসের দুটি, সফিক মিয়ার তিনটি, ফজু মিয়ার দুটি, রজব আলীর দুটিসহ একই গ্রাম থেকে অন্তত ২০টি গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। চুরি যাওয়া গরুর মালিকরা জানান, এখন দিনদুপুরেও গরু চুরি হওয়ার কারণে অর্থনৈতিকভাবে গ্রামের কৃষকরা সংকটের মুখে পড়েছেন।

দোয়ারাবাজার থানার ওসি আবুল হাশেম জানান, গরুচোর সিন্ডিকেটকে ধরতে শিগগির পুলিশের অভিযান চালানো হবে।