বালুদস্যুকে ছেড়ে দিল পুলিশ

প্রকাশ: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

যাদুকাটা নদীর পাড় কেটে বালু উত্তোলন করার অভিযোগে সুমন মিয়া নামে এক ব্যক্তিকে আটকের পর ছেড়ে দিয়েছেন কর্তব্যরত পুলিশ অফিসার। গতকাল রোববার সকালে উপজেলার বালুপাথর মহাল যাদুকাটা নদীতে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই জানান, যাদুকাটা নদীতে প্রতিদিন দুইশ' সেইভ মেশিন বালু উত্তোলন করে। প্রতি সেইভ মেশিন থেকে দুই হাজার টাকা করে আদায় করে থাকে বাদাঘাট ইউনিয়নের ঢালারপাড় গ্রামের সুমন মিয়া, লিয়াকত আলী ও পার্শ্ববর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার শরিফগঞ্জ গ্রামের হেলাল। এতে প্রায় দৈনিক প্রতিদিন তিন থেকে চার লাখ টাকা আদায় করে থাকে এ চক্রটি।

আদায়কৃত টাকা বিভিন্ন সংস্থা নিয়ে থাকে বলে উপজেলাজুড়ে আলোচনা ও সমালোচনা রয়েছে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত সুমন মিয়ার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তিনি সেইভ মেশিন থেকে কোনো টাকা আদায় করেন না। তার নৌকাটি নদীর পাড়ে থাকায় পুলিশ তাকে আটক করেছিল। পরে তাহিরপুর থানার অধীন বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই বিলাল হোসেন তাকে ছেড়ে দেন।

বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই বিলাল হোসেন বলেন, যাদুকাটা নদীতীরে সুমনের নৌকা থাকায় তাকে আটকের পর গণ্যমান্য ব্যক্তির সুপারিশে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এদিকে, বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আমির উদ্দিন বলেন, যাদুকাটা নদীতে কাউকে আটক বা ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি তার জানা নেই।