মৌলভীবাজারে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের চার দফা দাবি আদায়ের আন্দোলনে জেলা যুবলীগ ও ছাত্রলীগ বাধা দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতারা। মঙ্গলবার সকালে জেলা শহরের চৌমোহনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে মৌলভীবাজার প্রেস ক্লাবের সামনে প্রথমে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীরা একত্র হয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন। এরপর তারা দাবি আদায়ে শহরের চৌমোহনা এলাকায় রাস্তা বন্ধ করে অবস্থান কর্মসূচি পালনের প্রস্তুতি নেন। তখন জেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক, জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদকসহ বেশ কয়েকজন নেতা আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মারপিট করেন এবং হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেন। এতে চার-পাঁচ শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন বলে জানান আন্দোলনকারীরা।

শিক্ষার্থী জসিম উদ্দিন বলেন, দাবি আদায়ে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন কর্মসূচি পালনে বাধা দিয়ে হামলা করে ব্যানার ছিনিয়ে নেওয়া হয়। এ সময় জুবায়ের আহমদসহ দুই শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছেন। আরও কয়েকজন আঘাত পেয়েছেন।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে জেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম সুমন বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে বলেছি আন্দোলন কর্মসূচি পালন করা ভালো। তবে রাস্তা বন্ধ করে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ও জনদুর্ভোগ সৃষ্টি না করে এক পাশে গিয়ে কর্মসূচি পালনের জন্য তাদের অনুরোধ জানিয়েছি। তাদের বাধা দেইনি।

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হচ্ছে সেশনজট নিরসন; দ্বিতীয়, চতুর্থ ও ষষ্ঠ পর্বের তাত্ত্বিক বিষয়গুলোতে প্রমোশন দিয়ে প্র্যাকটিক্যাল পরবর্তী সেমিস্টারের সঙ্গে সংযুক্ত করা; প্রথম, তৃতীয়, পঞ্চম ও সপ্তম পর্বে শর্ট সিলেবাসের মাধ্যমে ক্লাস নিয়ে দ্রুত পরীক্ষা নেওয়া এবং প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীদের জন্য আসন বরাদ্দের ব্যবস্থা করা।

মন্তব্য করুন