সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা কালু মিয়া রিকশা চালিয়ে সংসারের জন্য দু'মুঠো ভাতের ব্যবস্থা করেন। প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বের হওয়ার সময় দেরিতে ফিরবেন বলে জানিয়ে যান। তিনি দেরিতে ফিরেছেন ঠিকই, তবে লাশ হয়ে ফিরতে হয়েছে তাকে। তার ব্যাটারিচালিত রিকশাটি ছিনতাইয়ের জন্য দুস্কৃতকারীরা তাকে খুন করে লাশটি ওসমানীনগরের দয়ামীর এলাকায় কৃষিজমিতে ফেলে রাখে। পরদিন সকালে লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেন স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। ওই দিনই স্বজনরা লাশের পরিচয় শনাক্ত করেন। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন নিহতের ছেলে কয়েছ।

ওসমানীনগর থানার ওসি শ্যামল বণিক জানান, ধারণা করা হচ্ছে রিকশাটি চুরির জন্য চালককে খুন করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন