হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রীর উপস্থিতিতে দলীয় নেতাকর্মীরা বিস্তর ক্ষোভ ঝেড়েছেন। সাম্প্রতিক নির্বাচনগুলোতে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীদের পরাজয়কে কেন্দ্র করেই ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।

বর্ধিত সভায় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা বলেন, গত ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় দফায় পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী শ্রীধাম দাশগুপ্ত নৌকা প্রতীকে মাত্র ৬০৮ ভোট পেয়ে জামানত হারান। নৌকার এ ধরনের ভরাডুবিতে সংগঠনের ভাবমূর্তি ও দলীয় নেতাকর্মীদের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ হয়। সিলেট বিভাগের প্রবেশদ্বার মাধবপুরে আওয়ামী লীগের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস ও ঐতিহ্য ছিল। কিন্তু নির্বাচনের সময় নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পক্ষে কেউ আন্তরিকভাবে কাজ করেননি। এছাড়া বিগত উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুর রহমানকে পরাজিত করা হয়েছে। বিগত পৌরসভা ও উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কতিপয় নেতাকর্মী বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করায় এমন পরাজয় হয়েছে। ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা বলেন, নির্বাচন এলেই নৌকাকে ডুবিয়ে দিতে আওয়ামী লীগের কতিপয় নেতাকর্মী এ কাজটি করেন। মাধবপুরে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক অবস্থা খুবই দুর্বল। অচিরেই দলকে গতিশীল না করা হলে এর প্রভাব পড়বে ইউপি ও সংসদ নির্বাচনে।

বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী বলেন, নেতাকর্মীদের মধ্যে ঐক্য থাকলে আওয়ামী লীগ সব সময় বিজয়ী হয়। এ পরাজয় বিভক্তির ফসল।

মন্তব্য করুন