সিলেটে জ্বালানি তেলের সংকট

প্রকাশ: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

সিলেট ব্যুরো

এক সপ্তাহের মধ্যে সিলেটে তেলের সরবরাহ স্বাভাবিকের উদ্যোগ না নিলে লাগাতার ধর্মঘটে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন জ্বালানি ব্যবসায়ীরা। আগামী রোববারের মধ্যে সংকট নিরসন না হলে ১ মার্চ থেকে সিলেট বিভাগের জ্বালানি ব্যবসায়ীরা ধর্মঘট শুরু করবেন বলে আলটিমেটাম দিয়েছেন। ছয় মাস ধরে জ্বালানি তেলের সরবরাহ কম হওয়ায় সিলেট বিভাগের চার জেলার ১১৪টি পেট্রোল পাম্প বন্ধের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে বলে দাবি করেছেন ব্যবসায়ীরা।

গতকাল সোমবার পেট্রোল পাম্প অ্যান্ড ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সিলেট বিভাগীয় নেতারা সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আ ন ম বদরুদ্দোজার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ সময় তারা রেলওয়ে কর্তৃপক্ষসহ সংশ্নিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত সমস্যা সমাধানের আহ্বান জানান। সাম্প্রতিক সময়ে রেলের ওয়াগনের অভাবে চট্টগ্রাম থেকে চাহিদা অনুযায়ী জ্বালানি আসছে না বলে জানিয়েছেন জ্বালানি ব্যবসায়ীরা। উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলারস ডিস্ট্রিবিউটার্স এজেন্টস অ্যান্ড পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সিলেটের সভাপতি মোস্তফা কামাল, অর্থ সম্পাদক সিরাজুল হুসেন আহমদ, সহ-সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল ইসলাম প্রমুখ।

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলারস ডিস্ট্রিবিউটার্স এজেন্টস অ্যান্ড পেট্রোল পাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় মহাসচিব ও সিলেট বিভাগীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহমদ চৌধুরী জানান, একাধিকবার সমস্যার কথা জেলা প্রশাসনকে জানালেও তারা কথা রাখেনি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তেলের সংকট সমাধান না হলে এবং সিলেট গ্যাসফিল্ড থেকে তেল উৎপাদন শুরু না করলে তারা লাগাতার ধর্মঘট শুরু করবেন বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, সিলেটে ডিজেল সরবরাহ রেলওয়ের ওয়াগননির্ভর হওয়ায় প্রতিনিয়ত নানা সমস্যার সৃষ্টি হয়। এ ছাড়া গোলাপগঞ্জের গ্যাসফিল্ডের খনি থেকে তেল উৎপাদন প্রায় ছয় মাস বন্ধ থাকায় সংকট কাটিয়ে ওঠা যাচ্ছে না।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আ ন ম বদরুদ্দোজা বলেন, জ্বালানি সংকট নিরসনে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বৈঠকে সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।