চলমান লকডাউনের তৃতীয় দিনে সিলেটের বিভিন্ন আঞ্চলিক সড়কে যাত্রীবাহী বাস চলাচল করেছে। গতকাল বুধবার সকালে সিলেট-জকিগঞ্জ ও সিলেট-বিয়ানীবাজার রুটে বাস চলাচল করতে দেখা গেছে। এক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের কোনো তোয়াক্কা করা হয়নি। ভাড়াও আদায় করা হয়েছে দ্বিগুণ।

সার্বিক পরিস্থিতিতে গতকাল থেকে দেশের সব ক'টি মহানগরে সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এই সুযোগে 'নগর এক্সপ্রেস' গতকাল স্বাভাবিক সময়ের মতো নগরীর সীমানার বাইরেও যাত্রী পরিবহন করেছে। সিটি করপোরেশন এলাকার বাইরে বাস চলাচল প্রসঙ্গে নগর এক্সপ্রেস সিটি বাস মালিক গ্রুপের আহ্বায়ক ও সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর মখলিছুর রহমান কামরান জানান, নগরীর কোর্ট পয়েন্ট থেকে বাস ছাড়ার সময় সিটি করপোরেশনের বাইরের অনেক যাত্রী উঠে পড়েন। তাই আগের রুটে বাস চলাচল করছে।

সিলেট কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে জকিগঞ্জ ও বিয়ানীবাজারের উদ্দেশে যাত্রীবাহী বাস চলাচল করছে। প্রশাসনের কোনো বিধিনিষেধ না থাকায় বাসের মালিক-শ্রমিকরা নিজ দায়িত্বে রাস্তায় বাস নামিয়েছেন বলে দাবি করেন শ্রমিক নেতারা। গতকাল ভোর থেকে আঞ্চলিক সড়কে বাস চলাচল শুরু হলে বেলা ১১টার দিকে পুলিশের অনুরোধের ভিত্তিতে তা বন্ধ করা হয় বলে জানান জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুহিত।

জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ, মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ময়নুল ইসলাম জানান, নগরীতে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দেওয়ায় স্বল্পসংখ্যক মালিক-চালক তাদের বাস জকিগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার সড়কে নামিয়ে দিয়েছেন। রাস্তায় বাস চলাচলে প্রশাসন বাধা দিচ্ছে না। তারা নিজ দায়িত্বেই রাস্তায় নেমেছেন।

মন্তব্য করুন